“রোয়ার” কর্তৃক আয়োজিত টেকশই শক্তি উন্নয়ন ১৭ নিয়ে কর্মশালা সম্পন্ন ।

0
745
“Implementation about Sustainable Development Goals in Bangladesh” – শিরোনামে প্রদত্ত কর্মশালাটি ৬ই এপ্রিল শুক্রবার সম্পন্ন হয়েছে। রোয়ার কর্তৃৃৃক আয়োজিত উক্ত কর্মশালাটিতে রোয়ারের ভলান্টিয়ারবৃন্দ এবং চট্টগ্রামের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৩০ জন ছাত্র-ছাত্রী অংশগ্রহণ করেন। কর্মশালাটির স্পিকার হিসেবে ছিলেন মু. রিদুয়ানুল হক চৌধুরী ফাউন্ডার ও চেয়ারম্যান – রুটস অব রিসোর্চ, গ্লোবাল ইয়ুথ অ্যাম্বেসেডর – দেয়ার ওয়ার্ল্ড। উক্ত অনুষ্টানটি পরিচালনা করেন রোয়ারের সেক্রেটারী তারেক মাহবুব খান। পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্টানটির কার্যক্রম শুরু হয়।
স্পিকারের সাবলীল ভাষায় শুরু হয় এসডিজিএস ১৭ কি এবং কিভাবে তার লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা সম্ভব। তিনি বলেন, ইহা  একটি বিশ্বব্যাপী আন্দোলন যাহার ভিশন ২০৩০ এর মধ্যে তাহার লক্ষ্যমাত্রায় পৌছানো।  এই লক্ষ্যমাত্রা পরিপূর্ণভাবে অর্জন করা গেলে ২০৩০ সালের মধ্যে কেউ পেছনে পড়ে থাকবে না। এই কর্মশালাটি  আয়োজনের মুখ্য উদ্দেশ্য ছিল, যুব সমাজকে উন্নয়নের মাধ্যমে কিভাবে সমাজ, জাতি ও দেশের কাজে লাগানো যায় এবং একটি সুষ্টু দেশ গঠনে যুব সমাজের অবদান গুলো কি কি তা দেখানো। যুব সমাজকে দক্ষতা উন্নয়নের মাধ্যমে কিভাবে তাহাদের সংস্থান করা যায় এবং কাজে লাগানো যায় সেই সব বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। এছাড়াও টেকসই উন্নয়নের ১৭টি লক্ষ্যমাত্রার উন্নয়নের ধারা ও উপায় নিয়েও আলোচনা হয়।
কর্মশালাটিকে তিনটি ধাপে ভাগ করা হয়। প্রথম ধাপে ছিল বিস্তারিত আলোচনা, দ্বিতীয় ধাপে প্রশ্নোত্তর পর্ব এবং তৃ্তীয় ধাপে ছিল ব্রেক আউট সেশন। কর্মশালায় আগত শিক্ষার্থীরা সবচেয়ে বেশী এই সেশনটি উপভোগ করেছে। ব্রেক আউট সেশনটি ছিল এমন কয়েকজনের সম্বনয়ে একটি টিম গঠন করা হয় ও প্রতিটি টীমে একজন করে দলনেতা ছিলেন। এসডিজিএস ১৭ এর উপর ভিত্তি করে টেকসই উন্নয়ন ও লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কিভাবে কাজ করা যায় প্রতিটি টীম খুব সুন্দর ভাবে এটি উপস্থাপন করে।
প্রেসেন্টেশন এর শেষে সার্টিফিকেট বিতরণের মাধ্যমে উক্ত কর্মশালাটির পরিসমাপ্তি হয়। সার্টিফিকেট এর সময় উপস্থিত ছিলেন শাহী কমার্শিয়াল কলেজ এর প্রিন্সিপাল শাহ জিয়া উদ্দিন। এছাড়াও ছিলেন রুটস অব রিসোর্চ এর ডিরেক্টর এইচ এম হজিহাদ, রোয়ারের প্রেসিডেন্ট জাওয়াদুল করিম ও অন্যান্য নেতৃৃবৃন্দ।

Leave a Reply