পরিবারের একমাত্র কর্মজীবী পঙ্গু। বাঁচতে চায় তিন সন্তান ও স্ত্রী কে নিয়ে!

0
256

মো:-হুমায়ুন ভূঁইয়া ফরিদগঞ্জ, (চাঁদপুর) প্রতিনিধিঃ ফরিদগঞ্জ উপজেলার ৮নং পাইকপাড়া দঃ ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড পূর্ব দায়চারা গ্রামের মোঃ শহিদুল ইসলাম (৩৩) নামে এই ব্যক্তি গাছথেকে পড়ে পঙ্গু অবস্থা দীর্ঘ ৩ মাস যাবত পরিবারের একমাত্র কর্মক্ষম ব্যক্তি পঙ্গু। চার সদস্য পরিবারের তিন বেলা খাবার জোটেনা।

সরজমিনে গিয়ে জানাযায় যে ৪নং গুপ্টি ইউনিয়নে ৮নং ওয়ার্ডের গড়ীআনা গ্রামের উকিল বাড়ির মোঃ আলি আশরাফের ৭ সন্তানের মধ্যে (মোঃ শহিদুল ইসলাম) বড় ছেলে। মায়ের নাম আনোয়ারা বেগম।তিনি দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর যাবত এই দায়চারা গ্রামে বসবাস করে,বর্তমানে তিনি এই গ্রামের বাশিন্দা,এই গ্রামেই তিনি কর্মরত ছিলেন,পরিবার পরিজন নিয়ে এই গ্রামে বসবাস করেন। তার মা বাবা দুইজনেই জীবিত। তিনি (শহিদুল ইসলাস) পূর্ব দায়চারা গ্রামের মৃত আব্দুল সাত্তার খাঁন সাহেবের ছোট জামাই । তিনি এই পরিচিতি-তে এই গ্রামের সকল মানুষের কাজ কর্ম করে জীবন জাপন করতেন। বিগত ২৫/১১/২০১৮ইং রোজ রবিবার পার্শ্ব একটি গ্রামে গাছ কাটার কাজে কর্মরত হয়। সে সময় তিনি গাছ থেকে পড়ে বাম পার্শ্বের একটি হাড় এবং মেরুদন্ডে বড় ধরনের আগাত পায়। তিনি এই দূরঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে কর্ম করার মতো ক্ষমতা হারিয়ে পেলে। তার বর্তমান ফ্যামিলির সদস্য সংখ্যা তিন মেয়ে সহ ৫ জন,দুটি সন্তান (বড় মেয়ে তৃতীয় শ্রেনীতে) ও (ছোট মেয়ে প্রথম শ্রেনীতে) একটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়াশুনা করেন। আত্মীয় স্বজন থেকে তেমন কোনো সাহায্য সহযোগীতা পাচ্ছে না। এই অবস্থায় তার বর্তমান সংসার ও ঔষধ খরচ পতিনিয়ত চালাতে অক্ষম। কিছু সংক্ষক মানুষ তার পরিস্থিতিতে সহযোগীতা করেছে, বিশেষ করে এলাকার মসজিদ থেকে প্রবাসীদের পক্ষথেকে এবং জনসাধারনের পক্ষথেকে। কিন্তু বর্তমান তার অবস্থা এতোটাই করুন, এই পরিস্থিতিতে তার বড়ধরনের আর্থিক সহযোগীতা প্রয়োজন,তাই সকলের প্রতি,

Leave a Reply