জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অভিযানে ১০৮ প্রতিষ্ঠানকে ৯.১৯ লক্ষ টাকা জরিমানা

0
325

১২ মার্চ ২০১৯ খ্রি: বাণিজ্য মন্ত্রণালয়াধীন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বিভিন্ন বিভাগীয় ও
জেলা কার্যালয়ের ৪১ জন কর্মকর্তার নেতৃত্বে ঢাকা মহানগর, গোপালগঞ্জ, টাঙ্গাইল,
কিশোরগঞ্জ, ময়মনসিংহ, ফরিদপুর, নরসিংদী, মাদারীপুর, নেত্রকোণা, রাজবাড়ী, মানিকগঞ্জ,
জামালপুর, দিনাজপুর, লালমনিরহাট, গাইবান্ধা, চট্টগ্রাম, ঠাকুরগাঁও, কক্সবাজার, বরিশাল, রংপুর,
বরগুনা, মৌলভীবাজার, কুষ্টিয়া, সুনামগঞ্জ, রাজশাহী, বাগেরহাট, ফেনী, সাতক্ষীরা, ভোলা, যশোর,
ঝিনাইদহ এবং নোয়াখালীতে আজ বাজার তদারকি করা হয়।
ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক জনাব মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার, সহকারী
পরিচালক জনাব শাহনাজ সুলতানা, রজবী নাহার রজনী, জান্নাতুল ফেরদাউস এবং ঢাকা জেলা
কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক জনাব মোঃ আব্দুল জব্বার মন্ডল কর্তৃক খিলক্ষেত, ভাটারা,
গেন্ডারিয়া, লালমাটিয়া ও মোহাম্মদপুর এলাকায় বাজার তদারকি পরিচালনা করা হয়। বাজার
তদারকিকালে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য পণ্য তৈরির অপরাধে বিসমিল্লাহ হোটেল, রংধনু
কাবাব হাউজ, কাসুন্দি রেস্টুরেন্ট, মামা হোটেল, মা ফাস্টফুড এন্ড কাবাব, Foogle রেস্টুরেন্ট,
আল-অ্যারাবিয়ান ও ক্যাফে ১০ এএম টু ১০ পিএমকে যথাক্রমে ১০,০০০/- (দশ হাজার) টাকা,
১০,০০০/- (দশ হাজার) টাকা, ১,০০,০০০/- (এক লক্ষ) টাকা, ৫,০০০/- (পাঁচ হাজার) টাকা,
৭,০০০/- (সাত হাজার) টাকা, ১০,০০০/- (দশ হাজার) টাকা, ২৫,০০০/- (পঁচিশ হাজার) টাকা ও
৮,০০০/- (আট হাজার) টাকা, প্রতিশ্রুত পণ্য বা সেবা যথাযথভাবে বিক্রয় বা সরবরাহ না করার
অপরাধে কাসুন্দি রেস্টুরেন্টকে ৫০,০০০/- (পঞ্চাশ হাজার) টাকা, পণ্যের মোড়কে এমআরপি
লেখা না থাকার অপরাধে কাসুন্দি রেস্টুরেন্ট, নিউ এনডোরাজ ফাস্ট ফুড, জামাল ফার্মেসী, আল-
অ্যারাবিয়ান, দেলোয়ার স্টোর, ওয়েল ফুড ও প্রিমিয়ার সুইটসকে যথাক্রমে ৫০,০০০/- (পঞ্চাশ
হাজার) টাকা, ৫,০০০/- (পাঁচ হাজার) টাকা, ৮,০০০/- (আট হাজার) টাকা, ১৫,০০০/- (পনের হাজার)
টাকা, ৮,০০০/- (আট হাজার) টাকা, ২০,০০০/- (বিশ হাজার) টাকা ও ৪০,০০০/- (চল্লিশ হাজার)
টাকা, মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য বা ঔষধ বিক্রির অপরাধে মেসার্স কুমিল্লা স্টোর, বিক্রমপুর
স্টোর, মা জেনারেল স্টোর, শস্যদানা ও আমেরিকান বার্গারকে যথাক্রমে ১০,০০০/- (দশ হাজার)
টাকা, ১০,০০০/- (দশ হাজার) টাকা, ৫,০০০/- (পাঁচ হাজার) টাকা, ২০,০০০/- (বিশ হাজার) টাকা ও
৩০,০০০/- (ত্রিশ হাজার) টাকাসহ মোট ৪,৪৬,০০০/- (চার লক্ষ ছেচল্লিশ হাজার) টাকা জরিমানা
আরোপ ও আদায় করা হয়।


দেশব্যাপী ৩৫টি জেলায় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য পণ্য তৈরি, পণ্যের মোড়কে
এমআরপি লেখা না থাকা, মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য বা ঔষধ বিক্রয়, খাদ্য পণ্যে নিষিদ্ধ দ্রব্যের
মিশ্রণ, প্রতিশ্রুত পণ্য বা সেবা যথাযথভাবে বিক্রয় বা সরবরাহ না করা, ভেজাল পণ্য বা ঔষধ
বিক্রয়, বাটখারা বা ওজন পরিমাপক যন্ত্রের কারচুপি, ধার্য্যকৃত মূল্যের অধিক মূল্যে পণ্য
বিক্রয়, সেবা গ্রহীতার জীবন বা নিরাপত্তা বিপন্নকারী কার্য, ওজনে কারচুপির, অবহেলা
ইত্যাদি দ্বারা সেবা গ্রহীতার অর্থ, স্বাস্থ্য, জীবনহানি ইত্যাদি ঘটানো, পণ্যের মূল্যের তালিকা
প্রদর্শন না করার অপরাধে ৮৮টি প্রতিষ্ঠানকে ৪,৬১,০০০/- (চার লক্ষ একষট্টি হাজার) টাকা
জরিমানা আরোপ ও আদায় করা হয়।
অন্যদিকে লিখিত অভিযোগ নিষ্পত্তির মাধ্যমে পণ্যের মোড়কে এমআরপি লেখা না থাকার
অপরাধে ও ধার্য্যকৃত মূল্যের অধিক মূল্যে পণ্য বিক্রির অপরাধে ২টি প্রতিষ্ঠানকে ১২,০০০/-
(বার হাজার) টাকা জরিমানা আরোপ ও আদায় এবং ২ জন অভিযোগকারীকে জরিমানার ২৫%
হিসেবে ৩,০০০/- (তিন হাজার) টাকা প্রদান করা হয়।

গত ১২ মার্চ ২০১৯ তারিখে ৪১টি বাজার তদারকি ও ২টি লিখিত অভিযোগ নিষ্পত্তির
মাধ্যমে ১০৮টি প্রতিষ্ঠানকে মোট ৯,১৯,০০০/- (নয় লক্ষ উনিশ হাজার) টাকা জরিমানা আরোপ
ও আদায় করা হয়। আদায়কৃত জরিমানা হতে ২ জন অভিযোগকারীকে ৩,০০০/- (তিন হাজার) টাকা
প্রদান করা হয়। সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ, সিভিল সার্জন, মৎস্য কর্মকর্তা,
পরিবেশ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, বাজার কর্মকর্তা, স্যানেটারী ইন্সপেক্টর, শিল্প ও বণিক
সমিতির প্রতিনিধি এবং ক্যাব এসব তদারকি কার্যে সহায়তা প্রদান করেন। তদারকিকালে
সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে লিফলেট ও প্যাম্পলেট বিতরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply