জবির ছাত্রী ইমু বাঁচাতে চায়: প্রধান মন্ত্রীর দৃষ্টি কামনায়, আজাদ হাওলাদার’র ফেবুকে পোস্ট।

0
319

জবির ছাত্রী ইমু বাঁচাতে চায়: প্রধান মন্ত্রীর  দৃষ্টি কামনায়, আজাদ হাওলাদার’র ফেবুকে পোস্ট। 

এম. হাসনাইন আহমেদ হাওলাদার, ভোলা জেলা থেক-

(জিবিএস) ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ১৩ তম ব্যাচের মেধাবী শিক্ষার্থী শাহানা আক্তার ইমুর, মহা দুর্দশাপন্ন অবস্থায়, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে, তার সু চিকিৎসা নিশ্চিত করার লক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার একান্ত সু দৃষ্টি কামনা করে, দ্বীপ জেলা ভোলার ঐতিহ্যবাহী (হাওলাদার) পরিবারের উজ্জ্বল নক্ষত্র, ভোলা জেলার গর্ভ, সেই জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের’ই সাবেক সফল ছাত্র নেতা, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ’র সাবেক কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ এর সফল যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, সামাজিক সংগঠন “মুক্ত বাংলা’র” সম্মানিত চেয়ারম্যান, (সিবিএস) অর্গানাইজেশন এর মাননীয় প্রতিষ্ঠাতা/চেয়ারম্যান ও জনপ্রিয় জাতীয় দৈনিক “সকালের ডাক” এর সম্পাদক মণ্ডলীর সম্মানিত সভাপতি, জনাব আবুল কালাম আজাদ হাওলাদার তার ব্যক্তিগত “সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অর্থাৎ (ফেসবুক)” আইডিতে একটি পোস্ট করেন, তা’ ই হুবহু তুলে ধরা হলো –

“মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি কামনা করছি”
জ‌গন্নাথ বি‌শ্ববিদ্যালয়ের ছোট বোন ইমু বাঁচ‌তে চায়….. জিবিএস ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ১৩ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী শাহানা আক্তার ইমু। জিবিএস ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পুরো শরীর প্যারালাইজড হয়ে গেছে ইমুর। বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল এর আইসিইউ তে ভর্তি আছে।

স্বাভাবিকভাবেই জীবন-যাপন করতেছিল ইমু, হঠাৎ করেই গতকাল ০৪-০৩-২০১৯ তারিখ সোমবার রাতে জ্ঞান হারিয়ে যায় এবং সমস্ত শরীর প্যারালাইজড হয়ে যায় এমত অবস্থায় তাকে আইসিইউ তে ভর্তি করা হয়েছে। ডাঃ পরীক্ষা করে জানায় তার শরীরে জিবিএস নামক ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হাত পা প্যারালাইজড করে দিয়েছে। এক সপ্তাহের মধ্যে সেটি শরীরের ভিতরে প্রবেশ করে স্বাস প্রশ্বাস বন্ধ করে দিতে পারে। তাহলে তার মৃত্যু অনিবার্য।
সেজন্য তার শরীরের ভাইরাস সংক্রামণ বন্ধ করার জন্য তাৎক্ষণিক ইনজেকশন দেয়া জরুরী প্রয়োজন।

এই মূহুর্তে ইনজেকশন দেয়ার জন্য প্রায় ৮ থেকে ৯ লক্ষ টাকার প্রয়োজন। তাৎক্ষনিকভাবে ইনজেকশনটির ব্যবস্থা করা না গেলে তাকে বাঁচানো সম্ভব নয়। তার পরিবারের পক্ষে এত টাকা যোগাড় করা সম্ভব নয়। এমনকি সময়ও খুব কম।

আমরা সকলেই চাই ইমু আবার আমাদের মাঝে ফিরে আসুক। সে জন্য সকলের কাছে আর্থিক সাহায্যের জন্য আমরা সবাই আকুল আবেদন জানাচ্ছি। সাহায্য পাঠানোর জন্য–
০১৭৮১৯৫৪৫৩(বিকাশ)
০১৬৮৬৫৬৪২৮২-৬ (রকেট)
প্রিমিয়ার ব্যাং, গুলশান, সিরিয়াল আল আমীন এন্টারপ্রাইজ
একাউন্ট নম্বর ১৪৯-১১১০০০০০১৭৯

Leave a Reply