জাতীয় প্রেসক্লাবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় এগিয়ে যাওয়া বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

0
604

মোঃ মামুন শেখ (জবি): জাতীয় প্রেসক্লাবে আজ শুক্রবার সকাল ১০.৩০টায় বাংলাদেশ প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরাম-এর উদ্যোগে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় এগিয়ে যাওয়া বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনার জাতীয় প্রেস ক্লাবে (তৃতীয় তলায়) অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারের শুরুতে মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ বুদ্ধিজীবী ও মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান, প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মুঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান,মূল আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ড.শামসুল আলম এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ড. কাজী খালিকুজ্জামান আহমদ, অধ্যাপক ড. এম এ মান্নান, অধ্যাপক ড. মো. আমির হোসাইন,মেজর জেনারেল এ কে মোহাম্মদ আলী শিকদার (অব.), এবং এম কামরুল ইসলাম

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান বলেন, “৭০’ এর নির্বাচনে ৬ দফাই ছিল প্রধান নির্বাচনী ইস্তেহার। ঐ নির্বাচনে ২৪% ভোট ৬ দফার বিপক্ষে পড়েছিল। প্রকৃতপক্ষে, যারা তখন বিপক্ষে ভোট দিয়েছিল, তারাই পরবর্তীতে দেশের স্বাধীনতার বিপক্ষে কাজ করেছিল। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যখন প্রায় চুড়ান্ত পর্যায়ে ছিল, নতুন রাষ্ট্রের মেরুদন্ডকে ভেঙ্গে দিতে এই সকল পাকি-প্রেত্মাদের সহযোগিতায় ১৪ ডিসেম্বর দেশের বুদ্ধিজীবীদের নির্মমভাবে হত্যা করে। এরাই পরবর্তীতে ৭৫’ বঙ্গবন্ধুকে সপরিবহারে হত্যা করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়। ৭৫’ পরবর্তীকালে বাংলাদেশে বহুদলীয় গণতন্ত্রের নামে রাজাকারদের পুনরায় রাজনীতি করার ক্ষমতা দেয়া হয়।”

সভাপতির বক্তব্যে বাংলাদেশ প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরামের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান বলেন, “মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনা ছিল ‘মুক্তি’। আর ‘মুক্তি’ শব্দটি স্বাধীনতাকালে বঙ্গবন্ধুর ভাষণে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়েছে। এই মুক্তির আন্দোলন ছিল মূলত অপসংস্কৃতি, বৈষম্য ও শোষণ থেকে মুক্তি, আর বাংলাদেশ হবে বহু বাচনিক। দেশে মানুষের স্ব-স্ব স্বাধীনতা বজাই থাকবে। বাঙালিত্বের মূল চেতনা ঠিক থেকে যে যার দিক থেকে ধর্ম ও সংস্কৃতি পালনের স্বাধীনতা থাকবে। এগুলোই হচ্ছে স্বাধীনতার মূল চেতনা।”

তিনি আরো বলেন, “স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ের পর থেকে বর্তমান সরকারের আমলে বাংলাদেশ সকল ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি এগিয়ে যাচ্ছে। দেশের নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ হচ্ছে, মেট্টো রেল ও কর্ণফুলি নদীতে ট্যানেল তৈরি হচ্ছে। বর্তমান সরকারের দক্ষ নেতৃত্বে দেশে শিক্ষা, সংস্কৃতি ও অর্থনীতিসহ প্রতিটি ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছে।”

সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে কলামিস্ট ও সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগ-এর সহ-সভাপতি এম. নজরুল ইসলাম এবং স্বাগত বক্তা হিসেবে কলামিস্ট ফোরামের সদস্য-সচিব সৌরভ জাহাঙ্গীর বক্তব্য প্রদান করেন। এছাড়াও অধ্যাপক ড. মাহাবুর আলী, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সৈয়দ আব্দুল্লাহ আল মামুন ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. মোহাম্মদ আব্দুল বাকী বক্তব্য প্রদান করেন। এসময় বক্তারা দেশের উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে আগামী নির্বাচনে দেশের স্বাধীনতার সপক্ষের শক্তিকে জয়যুক্ত করার আহ্বান জানান।

সেমিনারে ফোরামের সদস্য-সচিব ও কলামিস্ট অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাস ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় এগিয়ে যাওয়া বাংলাদেশ’ শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। এসময় প্রগতিশীল কলামিস্টগণ উপস্থিত ছিলেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে