এবার কে হচ্ছেন চৌগাছা- ঝিকরগাছা আসনের নৌকার মাঝি।।

0
1514

মোঃ মহিদুল ইসলাম: (চৌগাছা)  আগামি জাতীয় সংসদ  নির্বাচনে যশোর ২ ( চৌগাছা -ঝিকরগাছা)  আসনে কে হচ্ছেন নৌকার মাঝি।  এই আসনে   কে পাচ্ছেন নৌকা। 
ভোট কে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে মাঠে আছে অনেকে।তবে বলা যাচ্ছে না কে পাবে প্রত্যাশীত সেই নৌকা।

যশোরের সীমান্তবর্তী দুটি উপজেলা ঝিকরগাছা ও চৌগাছা নিয়ে যশোর-২ সংসদীয় আসন গঠিত। এ দুই উপজেলায় রয়েছে দুটি পৌরসভা ও ২২টি ইউনিয়ন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে এ দুই উপজেলায় আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীরা  জনসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন।

এ আসন থেকে আওয়ামী লীগ পাঁচবার, জামায়াতে ইসলামী তিনবার, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা একবার করে বিজয়ী হয়েছেন।

১৯৭৩ সালে প্রথম সংসদ নির্বাচনে যশোর-২ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন আবুল ইসলাম। তিনি বর্তমান সংসদ সদস্য মনিরুল ইসলামের বাবা।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির  জানুয়ারির নির্বাচনে মনিরুল ইসলাম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

★★ এ্যাডঃ মনিরুল ইসলাম মনির তিনি যশোর জেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ন সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন  করছেন।

এ্যাডঃ মনিরুল ইসলাম মনির সবসময় মানুষের পাশে থেকেছেন। তার সময়ের মধ্যে তিনি দেখিয়েছেন ছোট বড় অনেক উন্নয়ন।রাস্তা-ঘাট,স্কুল-কলেজ,মসজিদ-মন্দিন কোথাও বাদ যায়নি তার উন্নয়ন।

★★ এ্যাডঃ মনিরুল ইসলাম মনির তিনি যশোর জেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ন সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন  করছেন।

এ্যাডঃ মনিরুল ইসলাম মনির সবসময় মানুষের পাশে থেকেছেন। তার সময়ের মধ্যে তিনি দেখিয়েছেন ছোট বড় অনেক উন্নয়ন।রাস্তা-ঘাট,স্কুল-কলেজ,মসজিদ-মন্দিন কোথাও বাদ যায়নি তার উন্নয়ন।

★★ বীর মুক্তিযোদ্ধা এস এম হাবিবুর রহমান তিনি চৌগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও অত্র উপজেলার পর পর দুই বার চেয়ারম্যান এর দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধা ও সাইত্রিশ বছর একা ধারে  চৌগাছা উপজেলার সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।  এস এম হাবিব তিনি অত্র উপজেলায় বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠাতা।
তিনি চৌগাছার একজন জনপ্রিয় চেয়ারম্যান।  জনগন তাকে এস এম হাবিব বলেই জানে। তিনিই এক জন চেয়ারম্যান যার বাসার দরজা সব সময় জনগণের জন্য খোলা থাকে।

★★ মেজর জেনারেল (অবঃ) নাসির উদ্দিন  তিনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর (অবঃ) একজন ডাক্তার। তিনি চাকুরী জিবনে খুব সুনামের সাথে চাকুরী   করে গেছেন।জানা যায় তিনি প্রাধানমন্ত্রীর খুব কাছের লোক। চাকুরী জীবন শেষ করে তিনি জনগনের কল্যানে কাজ করে যাচ্ছেন।

★★ মোঃ আনোয়ার হোসেন তিনি যুব লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির কৃষিবিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্বে আছেন।পাশা পাশি জনগনের সুকে দুখে তিনি সব সময় নিজেকে সমান ভাবে বিলিয়ে দিয়েছেন।

★★ অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম যিনি ছিলেন আওয়ামী লীগ সরকারের সাবেক বিদ্যুৎ ও খনিজ সম্পদ  মন্ত্রী। বিদ্যুত খাতে তার অবদান অনেক। তিনি সব সময় জনগনের পাশে থাকেন। সরকারের নানান উন্নয়ন মূলক কাজ তিনি ডিজিটাল প্রযুক্তি মোবাইলের মাধ্যমে জনগনের  কাছে পৌছাযে দেন।

★★ এবি এম আহাসানুল হক তিনি চৌগাছা মহিলা কলেজের সভাপতির ও যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্যের দায়িত্বে  আছেন।পেশায় তিনি বাংলাদেশ সুপ্রিম কোটের আইনজীবী। জন কল্যানে সব সময় তিনি জনগনের পাশে থাকেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে