‘তারুণ্যের ভাবনায় রাউজান’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে তরুণদের মুখোমুখি হন: ফারাজ করিম চৌধুরী

57
1290

রাকি কুমার সেন:আজ সোমবার (৫ নভেম্বর) দুপুরে রাউজান সরকারি কলেজের সাজেদা কবির চৌধুরী মিলনায়তনে ‘তারুণ্যের ভাবনায় রাউজান’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে তিনি তরুণদের মুখোমুখি হন। ‘সেন্ট্রাল বয়েজ অব রাউজান’ নামের একটি সংগঠন ব্যতিক্রমী এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

ফারাজ করিম চৌধুরী বলেন, আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সব সমস্যার সমাধান আসবে। আমি সব কিছু জানি না। তবে আমি জানতে চাই। শিখতে চাই। আমরা সবাই মিলে রাউজানকে অনেক দূর নিয়ে যাব।

কেমন রাউজান দেখতে চান এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, রাউজানে অস্ত্র নিয়ে সন্ত্রাসী ধরা পড়ার খবর আর চাই না। কোনো রোগী রাস্তা খারাপের জন্য হাসপাতালে যাওয়ার আগে মারা গেছে সেই রাউজান দেখতে চাই না। রাউজানে মাদকের ছড়াছড়ি চাই না। সংস্কৃতির চর্চা চাই। মেধাবী তারুণ্যের রাউজান চাই।

রাউজান কলেজ সরকারি হলেও ছাত্রদের বেতনটা বেশি কেন? এক ছাত্রীর এমন প্রশ্নের জবাবে ফারাজ করিম বলেন, আশপাশের কলেজে কম হলে এখানেও কম হবে। ইনশাআল্লাহ আগামী বছর থেকে এ সমস্যার সমাধান হবে।

নুসরাত ওয়াহেদ বলেন, জলিলনগরে চৌমুহনীতে জেব্রা ক্রসিং নেই। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপার হতে হচ্ছে। সেখানে জেব্রা ক্রসিং ও ট্রাফিক পুলিশ নেই।

ফারাজ করিম বলেন, রাউজানে সড়ক দুর্ঘটনা দিন দিন বাড়ছে। অবশ্যই আমরা বিষয়টি দেখব। ট্রাফিক সিগন্যাল, ট্রাফিক পুলিশ, কমিউনিটি পুলিশের ব্যবস্থা করা হবে। বিষয়টি আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক সভায় তোলা হবে। স্পিড ব্রেকার হচ্ছে দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ। পৃথিবীর উন্নত দেশে এটি নেই। আমাদের জেব্রা ক্রসিংয়ের ওপর জোর দিতে হবে।

রাউজানে মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমার বাবার স্বপ্ন আছে। জনগণ ভোট দিলে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে এখানে মেডিকেল কলেজ হবে।

রাউজানে শিক্ষিত ও অশিক্ষিত বেকারত্ব দূরীকরণ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, রাউজানের বেকারত্ব সমস্যা পাঁচ বছর আগে চিহ্নিত করেছি। তাই আমার বাবা শিল্পনগর করার উদ্যোগ নিয়েছেন। একনেকে অনুমোদন হয়েছে। ১০ হাজার চাকরি পাবে। চাকরি পেতে যোগ্যতা লাগবে।

রাউজানের তরুণদের জন্য কী করবেন এমন প্রশ্নের জবাবে বলেন, আমি মানুষের জন্য কাজ করতে চাই। রাজনীতির বাইরে থেকেও মানুষের জন্য কাজ করা সম্ভব। অনেক বড় বড় ব্যক্তিত্ব রাজনীতির বাইরে থেকে মানুষের জন্য কাজ করছেন। মানুষ চাইলে রাজনীতিতে আসবো। সরকার আইসিটি মন্ত্রণালয় করেছে। এটি নতুন প্রজন্মের জন্য বড় পাওয়া। আমি ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যবহারে তরুণদের ভাগ্য বদলাতে চাই। রাউজানে কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র হচ্ছে। আইটি পার্ক হচ্ছে। পুরো পৃথিবীর ভবিষ্যৎ হচ্ছে আইটি। অন্য উপজেলা থেকে আমরা অনেক এগিয়ে আছি। রাউজানে আইটি পার্ক হবে। পাইপলাইনে আছে।

এক প্রশ্নের উত্তরে ফারাজ করিম বলেন, বেকারত্ব সমস্যা হালকাভাবে নেওয়ার সুযোগ নেই। রাউজানে স্বনামধন্য ব্যবসায়ীরা আছেন। তাদেরও এগিয়ে আসতে হবে। আমি বড় বড় ব্যবসায়ীদের কাছে যাব। এটি অস্থায়ী সমাধান। আমাদের তরুণদের দক্ষতা অর্জন করতে হবে। যোগ্যতা অর্জন করতে হবে। তখন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান চাকরি দিতে বাধ্য।

তিনি বলেন, সিস্টেমের মধ্যে যে দুর্নীতি ঢুকে গেছে তা থেকে মুক্ত হওয়ার উপায় সচেতনতা সৃষ্টি। জলাবদ্ধতা প্রাকৃতিক দুর্যোগ। বন্যা ও পাহাড়ি ঢলে অনেক সড়ক নষ্ট হয়েছে। তালিকা হয়েছে। শিগগির কাজ শুরু হবে।

আগামী দুই মাসের মধ্যে দলমত-নির্বিশেষে রাউজানে পরিচ্ছন্নতা অভিযান শুরুর এবং সেন্ট্রাল গার্লস অব রাউজান গঠনের ঘোষণা দেন ফারাজ করিম।

পর্যায়ক্রমে নোয়াপাড়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, ইমাম গাজ্জালী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, গহিরা ডিগ্রি কলেজে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে।

57 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে