নওগাঁর নিয়ামতপুরে নৈশ্য প্রহরী খুন

0
576

স‌োহে‌ল রানা জয়,নওগাঁ প্রতিনিধিঃ নওগাঁর নিয়ামতপুরে নৈশ্য প্রহরী খুন হওয়ার ঘটনা ঘটে। জানা যায় গত রবিবার রাতে উপজেলার বাহাদুরপুর ইউনিয়নের খড়িবাড়ী বাজারের নৈশ্য প্রহরী সাদাপুর ডাংগাপাড়া গ্রামের ঝড়– মন্ডলের ছেলে আনছার আলী (৫৫)কে কে বা কাহারা খুন করে খড়িবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠের দক্ষিন-পূর্ব কোণে ফেলে রাখে।

সকালে এলাকাবাসী দেখে থানায় সংবাদ দিলে থানার অফিসার ইন চার্জ তোরিকুল ইসলামের নেতৃত্বে ইন্সপেক্টর (তদন্ত) নাজমূল হক ও অন্যান্য অফিসার ও ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে লাশ উদ্ধার করে। ঘটনস্থল পরিদর্শন কালে এ প্রতিবেদককে নিহত আনছার আলীর বড় ছেলে বাবু বলেন, আমার বাবা প্রতিদিনের ন্যায় গতকাল (রবিবার) সন্ধ্যা ৭টায় বাড়ী থেকে খড়িবাড়ী বাজারে নৈশ্য প্রহরীর দায়িত্ব পালনের জন্য যায়। আসার কথা পরদিন সকাল ৮ থেকে সাড়ে ৮টার মধ্যে। কিন্তু সকালেই খড়িবাড়ী বাজারের একজন আমাকে মোবাইলে আমার বাবার লাশ খড়িবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে পড়ে থাকার কথা বলেন। আমরা সাথে সাথে ঘটনা স্থলে আসি এবং বাবাকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখি। বাজারের অপর নৈশ্য প্রহরী খইবর আলী বলেন, আমি আনছারকে প্রতিদিন দেখতে পাই। কিন্ত কাল রাতে তাকে দেখতে পাই নাই। আমি সন্ধ্যায় খড়িবাড়ী বাজারে এসে প্রথমে রাত ১২.৪৫ মিনিট পর্যন্ত ঘুমাই। তখন আরেকজন দায়িত্ব পালন করে। ১টার পর আমি দায়িত্ব পালনের জন্য উঠি আর দায়িত্ব পালন শুরু করি। তখনও আনছারকে আমি দেখতে পাই নাই। সকালে সবার সাথে আমিও মৃত অবস্থায় দেখতে পাই। আমি ৩মাস থেকে নৈশ্য প্রহরীর দায়িত্ব পালন করি। এ বাজারে মোট ৫জন নৈশ্য প্রহরী আছে। এর মধ্যে আব্দুস সাত্তার ও সিরাজ উদ্দিন দীর্ঘ ১৬ বছর যাবত দায়িত্ব পালন করে আসছে। সামসুদ্দিন গত ১ মাস থেকে এবং নিহত আনছার আলী ৫ মাস থেকে নৈশ্য প্রহরীর দায়িত্ব পালন করতো। এ বিষয়ে অফিসার ইন চার্জ তোরিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমরা সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। এলাকাবাসীর সাথে কথা বলি। আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি রাত আনুমানিক ১২টার পর এবং ৩টার আগে তাকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে। নিহতের দুই চিপে হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। যার কারণে প্রচুর রক্ত ক্ষরন হয়েছে। নিহতের বড় ছেলে ও ভাইকে থানায় ডেকে পাঠিয়েছি। মামলার প্রস্তুতি চলছে। তদন্তের কাজ শুরু হয়ে গেছে। খুব শিঘ্রই হত্যাকারীকে সনাক্ত করে আইনের আওতায় নিয়ে আসতে পারবো। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে