বাংলাদেশ মুক্ত গার্মেন্ট শ্রমিক ইউনিয়ন ফেডারেশন (বিগফ) এর দশম দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

0
1300

গত ১৯/১০/২০১৮ইং তারিখ শুক্রবার বাংলাদেশ মুক্ত গার্মেন্ট শ্রমিক ইউনিয়ন ফেডারেশন (বিগফ) এর দশম দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন দ্বীন মোহাম্মদ কনভেনশন সেন্টার, চট্টগ্রাম এ অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ঊপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নন্দিত জননেতা জনাব খোরশেদ আলম সুজন, প্রধান বক্তা হিসেবে ঊপস্থিত ছিলেন বিগফ এর প্রধান উপদেষ্টা ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক জনাব মশিউর রহমান চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে ঊপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট শ্রমিক নেতা জনাব মাহবুব মিন্টু, জনাব সিরাজুল ইসলাম রনি , জনাব আব্দুল জলিলসহ জাতীয় শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও ৩৫টি বেসিক ইউনিয়নের কাউন্সিলর ও অতিথিবৃন্দ। সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনাব খোরশেদ আলম সুজন বলেন: বিগফ একটি সুশৃঙ্খল শ্রমিক সংগঠন হিসেবে পোশাক কারখানার শ্রমিকদের অধিকার নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। বিগফের সাংগঠনিক কাঠামোর প্রশংসার পাশাপাশি শিল্পের বিকাশে নেতৃবৃন্দকে আরো দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের আহবান জানান। তিনি নারীদের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কর্তৃক গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপ, যেমন- মাতৃত্বকালীন ছুটি বর্ধিত করন, বাবার নামের পাশে মা এর নাম সকল ক্ষেত্রে অর্ন্তভূক্ত করা, সকল ক্ষেত্রে নারীদের এগিয়ে যাওয়ার গল্প শ্রমজীবি মানুষের কাছে বার্তা দিতে আহবান জানান। তিনি শ্রমিকদের জন্য হাসপাতাল, নারী শ্রমিকদের জন্য ডরমেটরী, শিশু লালন কেন্দ্র, ইপিজেড শ্রমিকদের জন্য পর্যাপ্ত বাস বরাদ্ধ করার দাবী জানান। শ্রমিকদের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত মজুরী, শ্রম আইন সংশোধন, শ্রম বিধিমালা প্রণয়ন, শ্রমিক কল্যান ট্রাষ্ট গঠনের বিষয় উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সরকারের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য শ্রমিক সংগঠন ঐক্যবদ্ধ কাজ করার আহবান জানান। প্রধান বক্তার বক্তব্যে জনাব মশিউর রহমান চৌধুরী বলেন, ছাত্র রাজনীতি থেকে বিভিন্ন গার্মেন্টস কারখানার শ্রমিকদের সাথে কাজ করছি। ১৯৯৭ সালে বিগফ ০৭টি ইউনিয়ন নিয়ে কাজ শুরু করে আজ ৪৮টি ইউনিয়ন, ৩০ (ত্রিশ) হাজার সদস্য ও সারা বাংলাদেশে ১,২০,০০০ (এক লক্ষ বিশ হাজার) সংহতি সদস্য প্রমাণ করে বাংলাদেশের পোশাক শিল্প সেক্টরে অন্যতম বৃহৎ শ্রমিক সংগঠন বিগফ। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দুই মেয়াদে তিনবার পোশাক শিল্পের শ্রমিকদের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মজুরী বৃদ্ধি করে শ্রমিকদের আস্থা অর্জন করেছেন। তিনি বলেন এই পোশাক শিল্প দেশের জাতীয় সম্পদ। বৈদেশিক আয় ও নারীদের কর্মসংস্থান এর প্রধান খাত এই শিল্প। তাই শ্রমিকদের শিল্পের উন্নয়ন ও উৎপাদনে ভূমিকা রাখার আহবান জানান। তিনি বলেন, বিগফ একটি স্বতন্ত্র শ্রমিক সংগঠন হলেও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় মূল্যবোধ তুলে ধরে শ্রমিকদের এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তিনি বিগফের সম্মেলন এর সফলতা কামনা করেন। সম্মেলনে আরো বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট শ্রমিক নেতা সর্বজনাব মাহবুব মিন্টু, সিরাজুল ইসলাম রনি, আব্দুল জলিল, আবুল কালাম আজাদ, রাশেদুল আলম রাজু,জুয়েল বড়–য়া সুমিতা সরকার, রিন্টু বড়–য়া, মর্জিনা বেগম, মো: মোমিন, সানজিদা সুলতানা, সালাউদ্দীন পারভেজ, জাহাঙ্গীর আলম, মূছা মিয়া, হেমায়েত উদ্দীন রনি। সভাপতিত্ব করেন বিগফ এর কেন্দ্রীয় সভাপতি জনাবা নমিতা নাথ। সভা পরিচালনা করেন মহানগর সভাপতি জনাব চন্দন কুমার দে। সভায় বিগত ২ বৎসরের সাধারন সম্পাদকের রিপোর্ট পেশ , আয়- ব্যয় রিপোর্ট, গঠনতন্ত্র সংশোধন ও নতুন ইউনিয়ন বিগফ এ অর্ন্তভুক্ত বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে