ভৈরবে প্রবাসীর বাড়ির গ্রীল কেটে দূর্ধর্ষ চুরি

0
800

এম.আর রুবেল, ভৈরব (কিশোরগঞ্জ): ভৈরবে প্রবাসীর বাড়ির রান্নাঘরের গ্রীল কেটে পরিবারের লোকজনকে অজ্ঞান করে নগদ টাকা, মোবাইল ও স্বর্ণালঙ্কার চুরি করে নিয়ে গেছে অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা।
শহরের ভৈরবপুর উত্তরপাড়ার ইটালী প্রবাসী আব্দুল লতিফ মিয়া বাড়িতে বুধবার মধ্যরাতে এ ঘটনা ঘটে। ভোক্তভোগি পরিবারের গৃহকর্তা প্রবাসী আব্দুল লতিফ, স্ত্রী হাসিনা বেগম ও তাঁর মেয়ে আকলিমা বেগম অচেতন অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন। খবর পেয়ে ভৈরব থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

স্বজনরা জানান, বুধবার রাত আনুমানিক ২টার দিকে রান্নাঘরের জানালার গ্রিল কেটে ঘরে প্রবেশ করে ঘরের বিভিন্ন রুম থেকে নগদ টাকা, মোবাইল সেট ও স্বর্ণালংকার লুটে নিয়ে যায় দূর্বৃত্তরা।
প্রবাসীর স্ত্রী হাসিনা বেগম জানান, প্রতিদিনের ন্যায় তারা রাত ১১টার দিকে ঘুমিয়ে পড়ে। মাঝরাতে তাঁর গলা থেকে চেইন ছিনিয়ে নিয়ে যাচ্ছে দেখতে পেলেও উঠে দাঁড়ানোর মত শক্তি ছিলনা শরীরে। ভোর সকালে তাদেরকে অচেতন অবস্থায় স্বজনরা হাসপাতালে নিয়ে আসেন। তিনি আরো জানান, দূর্বত্তরা নগদ টাকা, একলাখ টাকা মুল্যের একটি মোবাইল সেট, তার গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন এবং তার মেয়ে আকলিমার গলার স্বর্ণের চেইনসহ আলমারিতে রাখা আনুমানিক ১২ ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়। এ বিষয়ে থানায় মামলা করবেন বলে জানান।
ভৈরব থানার উপ পরিদর্শক মো: আবুল খায়ের জানান, খবর পেয়ে সকালে পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থাল পরিদর্শন করে রান্না ঘরের গ্রিল কাটা ও ঘরের মালামাল অগোছালো দেখতে পাই। পুলিশ ধারণা করছে দূর্বৃত্তরা এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, এ ঘটনার আগেও ওই এলাকায় বিভিন্ন বাসা বাড়ির তালা ভেঙ্গে মানুষজনকে অজ্ঞান করে মুল্যবান জিনিস পত্র লুট করে নিয়ে যায় অজ্ঞান পর্টির সক্রিয় সদস্যরা। এসকল ঘটনায় ওই এলাকায় সুরক্ষিত রাতে ৩জন পাহারাদার রাতে ঢেউটি করেন। পাহারাদার থাকার পরও অজ্ঞাত কারণে প্রতিনিয়তই বিভিন্ন বাসা বাড়িতে চুরি থেমে নেই বলে জানান ওই এরাকায় বসবাসরত বাসিন্দারা। ওই এলাকায় চিহ্নিত অপরাধীরা রাতে ও দিনের বেলায় প্রকাশ্যে ঘুরাফেরা কররেও ভয়ে কেউ কথা বলার সাহস পাচ্ছেনা। মানুষজনকে অচেতন করে প্রতিনিয়ত ঘটিয়ে যাওয়া দূর্ধর্ষ চুরি রোধ করতে ও জানমালের নিরাপত্তা দিতে স্থানীয় আইনশৃংখলা বাহিনীর নিয়মতি টহলসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান স্থানীয় বাসিন্দারা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে