উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডে পুড়ল ১২০০ ঘরঃ আগুন নিয়ন্ত্রণে 

0
22
কায়সার হামিদ মানিক: কক্সবাজারের উখিয়ার ১৬ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্প শফিউল্লাহ কাটায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ১২০০ ঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।
রবিবার বিকাল ৫টার দিকে উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের শফিউল্লাহ কাটা ১৬ নাম্বার ক্যাম্পে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আগুনে প্রাথমিকভাবে ১২০০ ঘর পুড়ে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এপিবিএন পুলিশ।
উখিয়া ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের এক কর্মকর্তা জানান, আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। বেশ কিছু ঘরবাড়ি পুড়ে গেছে। প্রাথমিকভাবে গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে ধারণা করা হচ্ছে।
রবিবার রাত ৮টার দিকে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন-৮ (এপিবিএন) এর উপ-অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরান হোসেন বলেন, শফিউল্লাহ কাটা ক্যাম্পে আগুন লাগার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে আমাদের লোকজন পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে। পাশাপাশি ফায়ার সার্ভিসের ৮টি ইউনিট চেষ্টা চালিয়ে প্রায় ৩ ঘন্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। এ পর্যন্ত ১২০০ ঘর পুড়ে গেছে, সংখ্যাটি আরও বাড়তে পারে। অনুসন্ধান সূত্রে জানা যায় ক্যাম্প-১৬ এর  ইলিয়াস মাঝি এবং আবুল সৈয়দ মাঝির ঘর থেকে রান্না করার সময় গ্যাসের চুলা থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে সেখানে পুলিশ কাজ করছে।
১৪ এপিবিএন অধিনায়ক মো :নাইমুল হক জানান, ১৬ নং ক্যাম্পে আগুন লাগার খবর পেয়ে,আমার নেতৃত্বে ৫০ জন অফিসার ও ফোর্সসহ  ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আগুন নেভানোর কাজে নেমে পড়ি।
উখিয়া বালুখালী ক্যাম্পের নেতা সুলতান আহমদ জানান, ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় হাজারের বেশি ঘরবাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে এসব মানুষগুলো নিঃস্ব হয়ে গেছে। দ্রুত তাদের সহায়তা দেওয়া দরকার।
এর আগে চলতি বছরে ২ জানুয়ারি উখিয়া বালুখালী ২০ নাম্বার ক্যাম্পের জাতিসংঘের অভিবাসন বিষয়ক সংস্থা (আইওএম) পরিচালিত করোনা হাসপাতালের জেনারেটর থেকে আগুন লেগেছিল। এছাড়া গত বছরের ২২ মার্চ উখিয়ার বালুখালীতে আগুনে পুড়ে মারা যায় ১৫ জন রোহিঙ্গা। তখন ১০ হাজারের মতো ঘর পুড়ে ছাই হয়েছিল।