থুতু ছিটিয়ে কাটলেন নারীর চুল, ক্ষমা চাইলেন ‘হেয়ার স্টাইলিস্ট’ জাভেদ হাবিব

0
28

অনলাইন ডেস্ক: পানির অভাবে শুধুমাত্র থুতু দিয়ে কীভাবে চুলের যত্ন নেওয়া যায় প্রকাশ্য ওয়ার্কশপে তা শেখাতে গিয়ে ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটিয়ে ফেলেছেন ভারতের বিখ্যাত হেয়ার স্টাইলিস্ট জাভেদ হাবিব। থুতু ছিটিয়ে এক নারীর চুল কাটতে যেয়ে এই বিপত্তি ঘটে। এই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হতেই ক্ষমা চেয়ে নিলেও শেষ রক্ষা হয়নি। দ্রুত পদক্ষেপ নিয়েছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে দায়ের করা এফআইআর।

ভারতের উত্তরপ্রদেশের বাগপতের তরুণী পূজা গুপ্তা, যিনি নিজেও একটি পার্লারের মালিক, গিয়েছিলেন জাভেদ হাবিবের একটি ওয়ার্কশপে। সেখানে নানা পরামর্শ দেওয়ার মাঝে পূজাকে মঞ্চে ডেকে নেন হাবিব। জানান যে চুলের যত্ন নেওয়ার একটি ‘ডেমো’ দেখাবেন। পূজা বেশ খুশি মনেই রাজি হয়েছিলেন। মঞ্চে উঠে তিনি হাবিবের কথা মতো বসে পড়েন চুল কাটার সিটে। হাবিবও কাজ শুরু করেন। কিন্তু কিছুক্ষণ পরই ঘটে যায় সেই অদ্ভুত ঘটনা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় পূজা জানিয়েছেন, আমার চুল শ্যাম্পু করা ছিল না। উনি কাটতে কাটতে ঠিক আমার চুলের মাঝখানে থুতু ছেটালেন। এরপর বললেন- এই থুতুতে প্রাণ আছে। আসলে হাবিব বোঝাতে চাইছিলেন পানির অভাবে কীভাবে চুলের যত্ন করা যায়। আর তার জন্য তিনি অন্যের চুলে থুতু ছিটিয়ে ডেমো দেখাতে চাইছিলেন। কিন্তু এমন ঘটনা হওয়ার পরই পূজা সেখান থেকে উঠে আসেন। এমন ঘৃণ্যকর ব্যাপার তার সহ্য হয়নি। এই তিক্ত অভিজ্ঞতা থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় পূজা আরও জানিয়েছেন যে- তিনি রাস্তার ধারে সেলুনে গিয়ে চুল কাটবেন, তবু কোনওদিন আর হাবিবের কাছে যাবেন না। 

নারীর চুলে থুতু দেওয়ার ভিডিওটি ভাইরাল হতেই ক্ষমা চান জাভেদ হাবিব। বিষয়টি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ছিল না বলেই আত্মপক্ষ সমর্থনে বলছেন তিনি। কিন্তু তাতে বিতর্ক থেমে যায়নি। ভারতের জাতীয় মহিলা কমিশন বিষয়টি অত্যন্ত গুরুতর অপরাধ বলেই গণ্য করছে।
কমিশনের চেয়ারপার্সন রেখা শর্মা উত্তরপ্রদেশ পুলিশের ডিজির কাছে চিঠি লিখে দাবি জানিয়েছেন, ভাইরাল ভিডিওতে যা দেখা যাচ্ছে, তার দ্রুত তদন্ত করে নিয়ে কড়া ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক। এই আবেদন পেয়েই হাবিবের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়েরের দ্রুত পদক্ষেপ নেয় পুলিশ।