আইনের শিক্ষার্থীদেরকে দেখে সমাজের সচেতন হবে: হাবিবুল গণি

0
779

আনিসুর রহমান: মানবাধিকার লঙ্গনের বিরুদ্ধে সোচ্চার হও, মানবতার পথে অগ্রসর হও” – এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে গত ২৮ ও ২৯ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামের ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাসে বসে ‘এসসিএলএস ল অলিম্পিয়াড’ এর দ্বিতীয় আসর। ১৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩২টি টিম এ প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণ করে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি মোহাম্মদ হাবিবুল গণি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইস্ট ডেল্টা বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত উপাচার্য প্রফেসর মো: সেকান্দার খান। আরো বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রোটারী ইন্টারন্যাশনালের অতিরিক্ত জেলা প্রশিক্ষক ফাতেমা জেবুন্নেছা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এসসিএলএস এর প্রতিষ্ঠাতা মডারেটর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এম জসীম আলী চৌধুরী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিচারপতি মো: হাবিবুল গণি বলেন, “আইনের যথাযথ প্রয়োগের অভাব আমাদের দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় প্রধাণ অন্তরায়। এসসিএলএসের এমন কার্যক্রম আইনের শিক্ষার্থীদেরকে সমাজের প্রতি তাদের দায়বদ্ধতা সম্পর্কে সচেতন করে তুলবে।”
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ফাতেমা জেবুন্নেসা বলেন, “জাতিগত বিভেদের এ সংস্কৃতি অনেক আগে থেকেই শুরু হয়েছে। আমরা যুদ্ধ করছি ক্ষুধার সাথে, বৈষম্যের সাথে। আমাদের দেশ এগিয়ে যাবে যদি আমরা দেশকে দুর্নীতি মুক্ত করতে পারি। এসসিএলএসকে ধন্যবাদ মানবাধিকারকে গুরুত্ব দিয়ে এতো সুন্দর একটি প্রতিযোগীতার আয়োজন করার জন্য।”উল্লেখ্য, গত বছর দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ল অলিম্পিয়াডের আয়োজন করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনের শিক্ষার্থীদের সংগঠন “সোসাইটি ফর ক্রিটিক্যাল লিগ্যাল স্টাডিজ
(এসসিএলএস)”। প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকে ল অলিম্পিয়াড ছাড়াও এ সংগঠনটি বিভিন্ন সময়ে মুট কোর্ট প্রতিযোগীতা,ছায়া আদালত,ওয়ার্কশপ,ফিল্ড রিসার্চ,সেমিনারসহ নানামুখী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে প্রশংসিত হয়েছে। প্রতিযোগীতামূলক বিশ্বের সাথে তাল মেলাতে দেশের আইন শিক্ষাব্যবস্থায় বিপ্লব ঘটিয়ে শিক্ষার্থীদের মেধা ও সৃজনশীলতার উৎকর্ষ সাধণই এসসিএলএস’র উদ্দেশ্য।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে