সামুদ্রিক সম্পদের বিশাল মজুদ সোয়াচ অব নো গ্রাউন্ডে

0
436

মংলা বন্দরের ২০০ মাইল দক্ষিণে বঙ্গোপসাগরের একটি গভীরতম খাদের নাম সোয়াচ অব নো গ্রাউন্ড। বলা হতো, এর কোনো তল নেই। কিন্তু সাগরের এই তলদেশে পানির গভীরতাও এখন মাপা যাচ্ছে। গবেষকরা বলছেন, এর গভীরতা সাড়ে ৭শ’ মিটার বা আড়াই হাজার ফুট। ডলফিন, তিমি, হাঙ্গর ছাড়াও দামি সামুদ্রিক সম্পদের বিশাল মজুদ রয়েছে সোয়াচ অব নো গ্রাউন্ডে।

গবষেকদের মতে, তিমি ও ডলফিনের মতো বড় জাতের সামুদ্রিক প্রাণির প্রজনন কেন্দ্র সোয়াচ অব নো গ্রাউন্ড। নানা জাতের কাছিম ও কাঁকড়াও এখানে আসে ডিম ছাড়তে।

মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয় ও নৌবাহিনীর সহায়তায় স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ইসাবেলা ফাউন্ডেশনের গবেষণায় উঠে এসেছে এসব তথ্য। গত মার্চ ও নভেম্বরে নোয়াচ অব নো গ্রাউন্ডে দু’দফা গবেষণা চালায় ইসাবেলা ফাউন্ডেশন।

প্রমঙ্গত, গুরুত্ব ও গভীরতার বিবেচনায় সোয়াচ অব নো গ্রাউন্ড সামুদ্রিক সংরক্ষিত এলাকা ঘোষণা করা হয় ব্রিটিশ আমলে। এটি বিশ্বের ১১টি গভীরতম গিরি খাদের একটি। বিজ্ঞানীরা মনে করেন, এটি মূলত সামদ্রিক অভয়াশ্রম।

সূত্র: ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশন

Leave a Reply