অর্থনৈতিক মন্দায় ভারত

0
76
নরেন্দ্র মোদি (ফাইল ছবি)

অনলাইন ডেস্ক: অর্থনৈতিকভাবে আরো বিপর্যস্ত পরিস্থিতিতে ভারত। সম্প্রতি রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার একটি রিপোর্টে সেই ইঙ্গিতই দেওয়া হয়েছে। তবে নির্দিষ্ট তথ্য জানা যাবে নভেম্বর মাসের শেষে। রিজার্ভ ব্যাংকের রিপোর্টে বলা হয়েছে, বছরের তৃতীয় কোয়ার্টারে ভারতীয় জিডিপি আরো আট দশমিক ছয় শতাংশ নীচে নেমেছে। যার অর্থ ‘টেকনিক্যাল অর্থনৈতিক মন্দায় পড়েছে ভারতীয় অর্থনীতি।

এর আগে জুলাই মাসের কোয়ার্টারে ভারতীয় জিডিপির সর্বকালীন পতন ঘটেছিল। প্রায় ২৪ শতাংশ নেমেছিল জিডিপি। তবে সে সময় রিজার্ভ ব্যাংকের গভর্নর এবং অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন দু’জনেই বলেছিলেন, করোনা এবং লকডাউনের কারণেই এই পতন ঘটেছে। আগামী কোয়ার্টারেই তার থেকে উন্নতি হবে ভারতীয় জিডিপির। কিন্তু সাম্প্রতিক রিপোর্টে ভিন্ন ইঙ্গিত মিলছে।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এবং মানিটারি পলিসির প্রধান মিশেল পাত্র। তার নেতৃত্বেই একটি কমিটি সাম্প্রতিক রিপোর্টটি পেশ করেছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে, সেপ্টেম্বরের কোয়ার্টারে ভারতীয় অর্থনীতির আরো আট দশমিক ছয় শতাংশ পতন হয়েছে। ওই রিপোর্টেই বলা হয়ছে যে, ভারত অভূতপূর্ব রিসেশন বা অর্থনৈতিক মন্দার কবলে পড়েছে। এর আগে ২০০৮-০৯ সালের বিশ্বব্যাপী মন্দার সময়েও ভারতীয় অর্থনীতি সার্বিক ভাবে মন্দার কবলে পড়েনি। কিন্তু করোনাকালে তা আর বাঁচানো গেল না।

বস্তুত, মন্দা যত বাড়ছে, জিনিসপত্রের দামও তত ঊর্ধ্বমুখী হচ্ছে। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস, খাদ্যদ্রব্যের দাম এখন আকাশছোঁয়া। তার মধ্যে জিডিপির আরো পতন পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ করে তুলবে বলেই মনে করছেন অর্থনীতিবিদদের একাংশ। চাকরির বাজারেও পরিস্থিতি ভয়াবহ। লকডাউনের পরেও চাকরি হারাচ্ছেন বহু মানুষ। এখনো বহু চাকরিতে সম্পূর্ণ বেতন মিলছে না।

স্বাভাবিক ভাবেই, সাম্প্রতিক রিপোর্ট নিয়ে দুশ্চিন্তায় অর্থনীতিবিদদের একাংশ। এর আগেই ডয়চে ভেলেকে সাবেক অর্থ কমিশনের এক অর্থনীতিবিদ বলেছিলেন, ভারতীয় অর্থনীতির ৩৬ শতাংশ পর্যন্ত পতন হতে পারে। এবং সরকার যে নীতি নিয়ে চলছে, তাতে এখান থেকে ঘুরে দাঁড়াতে বহু সময় লেগে যেতে পারে।

সূত্র: ডয়চে ভেলে।বিডি-প্রতিদিন

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে