কক্সবাজারে বন্ধুকযুদ্ধে’ তিন রোহিঙ্গা ‘ইয়াবাকারবারি নিহতঃতিন লাখ ইয়াবা ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার

0
461

কায়সার হামিদ মানিক,
কক্সবাজারের উখিয়ায় বিজিবি সদস্যদের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে তিন রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে। তারা ইয়াবাকারবারি ছিল বলে দাবি করেছে বিজিবি। এসময় তিন লাখ পিস ইয়াবা, দুটি দেশীয় পাইপগান ও পাঁচ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই) ভোর রাত ৪টার দিকে উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের তুলাতলী জলিলের ঘোনা ব্রিজের পাশে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

নিহত রোহিঙ্গারা হলেন, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার তুমব্রু কোনারপাড়া জিরোপয়েন্টে অবস্থানরত রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মৃত জুলুর মুল্লুকের ছেলে নুর আলম (৪৪), উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প-১ এর জি/২৯ ব্লকের মো.গোরা মিয়ার ছেলে মো. হামিদ (২৩)ও উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের-২ এর ডি-৪ ব্লকের মো. সৈয়দ হোসেনের ছেলে নাজির হোসেন (২৪)।

বিজিবি দাবি করছে, বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় বিজিবির দুই সদস্য আহত হয়েছেন। তাদের উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

কক্সবাজার ৩৪ বিজিবি’র অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, সীমান্তের তুমব্রু বিওপির একটি দল টহল দেওয়ার সময় দেখতে পায়, মিয়ানমার থেকে পাহাড়ি পথে ১০/১২ জন লোক বাংলাদেশ সীমান্তে প্রবেশ করে। এসময় বিওপির সদস্যরা তাদের চ্যালেঞ্জ করলে তারা বিজিবি সদস্যদের দিকে গুলি করে। এসময় আত্মরক্ষার্থে বিজিবি’র সদস্যরাও পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে হামলাকারিরা পাহাড়ের জঙ্গলে দিকে পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল তল্লাশি করে তিন লাখ পিস ইয়াবা, দুটি দেশীয় পাইপগান ও পাঁচ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে। একইসঙ্গে তিন জনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। এর আগে আহত অবস্থায় তাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তাদের পরিচয় নিশ্চিত করে বিজিবি।

ময়নাতদন্তের জন্য মৃতদেহগুলো কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট আইনে উখিয়া থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে