এক নারীর আক্ষেপ

0
833
এক নারীর আক্ষেপ
সুজাতা দাস
কুরুক্ষেত্র যুদ্ধের প্রাক্কালে,গঙ্গা পুত্রের
সম্মুখে;যে রোদনন্মুখ এক মাতা”নিজ
কলঙ্ক ব্যক্ত করেছিলেন!!সে কী শুধুই
রাজমাতা কুন্তী?না কী শুধুই পান্ডব জননী?
না কী শুধুই পান্ডু পত্নী কুন্তী?
হতে পেরেছিলেন কী শুধুই জননী?
আমি কুন্তী,আমি পান্ডব জননী
আমি আরও এক পুত্রের জননী গাঙ্গেয়…
সারথীপুত্র অঙ্গরাজ কর্ণের মাতা আমি;হে গাঙ্গেয়।
পেয়েছিলাম বর দূর্বাশাৠষিরে তুষ্ট করি…
বালিকা আমি,যেদিন করেছিলেম আবাহন
না বুঝেই ভাষ্করে!!!পুত্রবতী করে ফিরে গেলেন
তিনি।
জন্মালেন কবজকুন্ডল ধারী দেবশিশু!!
কুমারী জননী আমি;লোকলজ্জার ভয়ে
ত্যাজিলাম তাঁকে,কুন্তী নন্দনে কৌন্তেয়কে…
মা গঙ্গার আশ্রয়!!!নিজেকে রক্ষার হেতু,
হে গাঙ্গেয়।
বহু বৎসর পরে রাজকুমার দিগের অস্ত্র
পরীক্ষার সমীপে,দেখিলাম তাঁকে!!!!!
সূর্য তেজোদীপ্ত এক বালক কবজকুন্ডল ধারী…
ধাইয়া আসিতেছে প্রতিযোগিতার আসরে
চিনিলাম তাঁকে;হে গঙ্গাপুত্র।
এ যে সেই প্রসাদ,এ যে কৌন্তেয় !!! মোর পুত্র;
মাতৃহৃদয় দুই বাহু বাড়াইতে চায়”বিগলিত ধারায়…
আজও সেই লোকলজ্জার ভয়;হে তাতশ্রী
এক মাতৃহৃদয়কে  করেছিল ছিন্নভিন্ন।
আমি যে রাজবধু,আবেগ যে শোভনীয় নয়;আমি যে
পান্ডব জননী ছাড়তে পারিনি রাজ অভিমান”
তাই আজও তাঁকে দিতে পারিনি তাঁর প্রাপ্য সম্মান…
সে যে কৌন্তেয় আদিত্য পুত্র,নহে জারজ নহে সারথীপুত্র
এ যে স্বাস্বত সত্য!!!!হে শান্তনু পুত্র।
হে বিধাতা হে আদিত্য,ফেরাও তোমার সন্তানে;
তাহার প্রাপ্য সমস্ত সন্মান।
হে গঙ্গাপুত্র ভীষ্ম —
আজ কুরুক্ষেত্র যুদ্ধের সমীপে,জন্মের ৠণ শুধীতে
চেয়েনিলাম তাঁর কাছ হইতে;থাকিবে পঞ্চপাণ্ডব মোর অক্ষত আমার অঞ্চলে।
আমি মাতা কুন্তী জ্যেষ্ঠ পুত্রেরে রাখিলাম বাজি;
অন্য সন্তানের রক্ষার্থে।
সত্যি ই কী মাতা হতে পেরেছি? আমি তাতশ্রী
না কী শুধুই পান্ডব জননী রাজমাতা কুন্তী?
পুত্রহন্ত্রী আমি,আত্মস্বার্থ সিদ্ধিই ছিল জীবনের ব্রত….
হে তাতশ্রী—
আমি পারিনি হতে শুধু জননী !!!!!
আমি হয়েছি রাজমাতা কুন্তী…
19/7/18.বৃহস্পতিবার, কোলকাতা

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে