‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রাখতে কোটা পদ্ধতি চালু রাখতে হবে’

0
724
সংগৃহীত ছবি

মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রাখতে সরকারি চাকরিতে কোটা পদ্ধতি বহাল রাখতে হবে বলে জানিয়েছেন নৌমন্ত্রী শাজাহান খান।

তিনি বলেন, ২০০৪ সালে সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের আন্দোলন শুরু করেছিল ছাত্রশিবির। স্বাধীনতা বিরোধী চক্র কোটা সংস্কার আন্দোলনের নামে এখন ষড়যন্ত্র করছে। তারা কোটা সংস্কারের নামে মুক্তিযোদ্ধাদের কোটা বাতিলের ষড়যন্ত্র করছে। মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রাখতে কোটা পদ্ধতি চালু রাখতে হবে।

‘শ্রমিক কর্মচারী পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ’ এবং ‘আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ গণবিচার আন্দোলন’-এর আহ্বায়ক ও নৌমন্ত্রী শাজাহান খান রবিবার জাতীয় প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে ৬-দফা দাবি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ‘গণস্বাক্ষর’ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

শ্রমিক কর্মচারী পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ, আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ গণবিচার আন্দোলন এবং মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম সমন্বয় পরিষদ গণস্বাক্ষর কর্মসূচির আয়োজন করে।

শাজাহান খান বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৬ দফা দাবি দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা এনেছিলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে রক্ষা এবং স্বাধীনতা বিরোধিদের নির্মূল করতে ৬-দফা দাবি বাস্তবায়ন করা হবে।

তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। রাজাকারদের বিচার, জঙ্গি দমন, মাদকের বিরুদ্ধে লড়াই করে উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছে।

মন্ত্রী বলেন, জামায়াত-শিবির দেশের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করেনা। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সকল শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ষড়যন্ত্রকারিদের প্রতিহত করতে হবে।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আলাউদ্দিন মিয়া ও সুলতান আহমেদ, নাট্য ব্যক্তিত্ব রোকেয়া প্রাচী, শ্রমিক লীগ নেতা সাহাবুদ্দিন মিয়া ও নুরুল ইসলাম, সিবিএ নেতা মো. কামালউদ্দিন ও আবুল হোসেন প্রমুখ।

বিডি প্রতিদিন

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে