বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র হত্যা, প্রতিবাদ-আন্দোলনে মুখর শিক্ষক শিক্ষার্থীরা

0
529

ডি এইচ রনি,জাককানইবি প্রতিনিধিঃ
ময়মনসিংহের একটি ছাত্রাবাসে ঢুকে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাককানইবি) তৌহিদুল ইসলাম নামে এক ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যার প্রতিবাদে ৬ দফা দাবিতে মানববন্ধন করেছে শিক্ষার্থীরা।

আজ (রবিবার) সকাল ১১টায় ত্রিশাল বাসস্ট্যান্ডে তৌহিদ হত্যার প্রতিবাদে এ মানবন্ধন করে তৌহিদের বন্ধুবান্ধব, বিশ্ববিদ্যালয়ের আশেপাশে অবস্থানরত শিক্ষার্থীরা ও ত্রিশালের সাধারণ জনগণ। এরপর দুপুর সাড়ে বারোটায় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মানববন্ধন করে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

শিক্ষার্থীদের মানববন্ধনে উত্থাপিত দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে ২৪ ঘন্টার মধ্যে দোষীদের গ্রেফতার, প্রকৃত খুনিদের ফাঁসি, বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে মামলা করার ব্যবস্থা গ্রহণ, তৌহিদ হত্যা মামলার সকল ব্যয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে বহন করতে হবে, মেসে অবস্থানকারী সকল শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরন এবং ছাত্র শিক্ষকের জন্য সর্বোচ্চ সুরক্ষা সেল গঠন।

মানববন্ধনে বক্তারা তৌহিদ হত্যার সাথে জড়িত খুনিদের দ্রুত গ্রেফতার করে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড নিশ্চিতকরণের দাবি জানান।

এদিকে এ হত্যাকান্ডের পর থেকে প্রতিবাদের ঝড় বয়ে যাচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ নির্মম এ হত্যাকান্ডে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছেন।

করোনার ছোবল থেকে বাঁচতে ঘর থেকে বের না হয়েই আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় ক্যারিয়ার ক্লাব, স্কিল ডেভলপমেন্ট ক্লাব, প্রথম আলো বন্ধুসভা, সাংবাদিক সমিতি, প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠনসমূহ।

খুনিদের আটক করার অগ্রগতি সম্পর্কে ময়মনসিংহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. আল আমিন বলেন, ‘আমরা কাজ করছি, তৌহিদের বন্ধু-বান্ধবদের জিজ্ঞাসাবাদ করছি, তবে আমরা এখনো মূল খুনি পর্যন্ত পৌছাতে পারিনি।

তিনি বলেন, ‘আন্দোলন-প্রতিবাদ তো হচ্ছেই, আমরা আমাদের কাজ করছি।’

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (১লা মে) ভোররাতে ময়মনসিংহ শহরের একটি মেসে ঢুকে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী তোহিদুল ইসলামকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। পরে তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে