অনুরণন (ধারাবাহিক গল্প) পর্ব – ৫ । তারুণ্য বিডি ২৪ ডটকম

0
864
সুজাতা দাস

অনুরণন
সুজাতা দাস (কোলকাতা)
(ধারাবাহিক গল্প) পর্ব – ৫

মোহরদি, এবার সত্যিই তোমার নিজের রাস্তা চেনার সময় হয়ে গেছে,কতদিন তুমি এই সম্পর্ককে টেনে চলবে;তোমার কী মনে হয় মোহরদি অর্জুনদা তোমার কাছে ফিরবে?
মাধুরীর চোখে চোখ রেখে শুনছিল মোহর;কাঁদবে না মনে করেও হঠাত্ চোখ দুটো বেইমানি করে বসলো মোহরের সাথে,আর ঝরে পড়লো মাধুরীর সামনে শ্রাবণের ধারায় কোনও বাধা না মেনে।
মাধুরী কাঁদতে দিল মোহরকে কোনও সহানুভূতির আচ আসতে দিল না কথা বা স্পর্শে।
কান্না থামিয়ে মোহর বলল, মাধুরী আমি খুব বোকা তাই না?
মাধুরী হেসে বলল না,তুমি সত্যিই ভালো বেসেছিলে অর্জুনদা কে ,কিন্তু ওটা বোঝার ক্ষমতা ওর নেই মোহরদি।
ছোট থেকেই ও কেনও যে এমন আজও কেউ উদ্ধার করতে পারেনি।
মোহর বলল এবার উঠতে হবে আমায় মাধুরী,
আমিও উঠবো চল একসাথে ই যাওয়া যাক।
 গাড়ি থেকে নেমে ফ্যাল্টে ঢোকার মুখে দেখলো অর্জুন এসেছে” কোন কথা না বলে ঢুকে গেল নিজের ঘরে,
স্নান সেরে যখন ঘর থেকে  বেরিয়ে এলো মোহর,হঠাত্ অর্জুন জিজ্ঞাসা করলো ভদ্রলোক কে?
অবাক চোখে খানিক অর্জুনের দিকে তাকিয়ে থাকার পর মোহর জিজ্ঞাসা করলো;কোন ভদ্রলোক?
যার গাড়ি তে এলে,বলল অর্জুন।
এই কথাটা জিজ্ঞাসা করবার অধিকার বোধহয় তুমি
 হারিয়েছ; বলল মোহর।
তুমি আমার স্ত্রী,বলল অর্জুন।
দমকা হাসিতে ভেঙে পড়লো মোহর; বলল স্ত্রী? কোনও দিন  ছিলাম; আমি অর্জুন ?
আমার উওর পাইনি মোহর,বলল অর্জুন।
আমি উওর দেবার প্রয়োজন মনে করছি না, বলল মোহর।
তুমি কী রাতে খাবে?না খেয়ে এসেছ?বলতে বলতে রান্না ঘরের দিকে এগিয়ে গেল কোনও উওরের অপেক্ষা না
করে।
খাবার ;টেবিলে সাজিয়ে খেতে ডাকলো অর্জুন কে ,খাওয়া শেষে সব গুছিয়ে ঘরে এল মোহর,এ ঘরে সচরাচর ঢোকেনা অর্জুন তবুও ঘরের দরজা বন্ধ করে দিল মোহর।
রাতপোশাক পরে খাটে এসে বসে হঠাত্ মোহরের মনে হল,
কোন পুরুষ পরকীয়ায় অভ্যস্ত হলে ক্ষতি নেই!! শুধু নিজের স্ত্রী কোন পুরুষের সাথে বাড়ি ফিরলেই দোষের হয়ে যায়;
হায় রে পুরুষ তান্ত্রিক সমাজ!!!!!
আসলে কালো কাচের কারনে অর্জুন মাধুরীকে দেখতে পায়নি তাই এই সন্দেহ।
ভালোবাসা না থাকলেও সন্দেহ আসে তাহলে—–
নাকি;এটা আমার সম্পত্তিতে অন্য কেউ ভাগ বসাচ্ছে–এই মনোভাব?
কোনটা ঠিক বুঝে উঠতে পারলো না মোহর!!!!!
হাত বাড়িয়ে সুচিত্রা ভট্টাচার্যের বইটা হাতে নিল মোহর,বেশ লেখে(কুড়িয়ে পাওয়া পেনড্রাইভ)এর একদম শেষেই চলে এসেছে প্রায় মোহর;সুন্দর ভাবে রহস্যের জট ছাড়িয়ে এগিয়ে চলেছে মিতিন।
নিজের চরিত্রের সাথে কোথাও মিল না থাকা সত্ত্বেও মিতিনের চরিত্রটিকে ভীষণ ভালোবাসে মোহর;মনে মনে ভাবে ও যদি মিতিনের মতো হতে পারতো?
হঠাত্ দরজায় ঠকঠক আওয়াজে চমকে উঠলো মোহর আর সমস্ত চিন্তা ছিন্ন হয়ে গেল…………….
ক্রমশ ……………..চলবে..
অনুরণন আগের পর্ব গুলো পড়তে ক্লিক করুন নিচের লিঙ্কে

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে