ফরিদগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনায় হামলা ভাংচুর পাঁচদিন একটি পরিবার এলাকা ছাড়া

0
696

শিশুদের মধ্যে মারামারিকে কেন্দ্র করে দুই ভাইয়ের পরিবারের লোকজনের মধ্যে হামলার ঘটনায় একপক্ষ থানায় মামলা দায়েরের পর অপর পক্ষের নারী-পুরুষসহ সকলে গত পাঁচদিন ধরে আতঙ্কে এলাকা ছাড়া। বাড়ি গেলে আবারো আক্রান্ত হতে পারে এ আশঙ্কায় চাঁদপুর পুলিশ সুপার বরাবর রোববার লিখিত অভিযোগ করেছে একটি পক্ষ। ফরিদগঞ্জ পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের উত্তর চরবড়ালী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্য রুনা আক্তার জানান, গত ৬ জুন রাতে একটি তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষ শাহাদাত উল্লা মিজি তার দলবল নিয়ে তাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। একপর্যায়ে আত্মরক্ষার্থে তারা বসতঘরে আশ্রয় নিলেও প্রতিপক্ষ লোকজন সদলবলে তাদের বসতঘরে প্রবেশ করে তার বাবা-মাকে বেদম মারধর করে। এতে তার বাবা হারুনুর রশিদ মিজি ও মা নূরজাহান বেগম মারাত্মক আহত হন। স্থানীয় লোকজন হারুনুর রশিদকে উদ্ধার করে ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্ েভর্তি করে। পরদিন হারুনুর রশিদকে হাসপাতালে রেখে রুনা ও তার মা বাড়িতে গেলে শাহাদাত উল্লা মিজি গং তাদেরকে লাঠিসোটা নিয়ে ধাওয়া করে। তাই প্রাণভয়ে পরিবারের সবাই গত পাঁচদিন যাবৎ পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

এদিকে শাহাদাত উল্লা মিজি জানান, ছোট-ছোট শিশুদের মধ্যে মারামারির ঘটনাকে কেন্দ্র করে তার ভাই হারুনকে জিজ্ঞাসা করতে গেলে তারা উল্টো আমাদের ওপর হামলা করে। এতে আমার স্ত্রী রোশনারা বেগম মারাত্মক আহত হন। বর্তমানে সে ঢাকায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ঘটনায় তিনি থানায় মামলা দায়ের করেছেন। তার ভাই ও পরিবার বাড়ি ছাড়া কেনো এ প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, হয়তোবা গ্রেফতার আতঙ্কে।

সুত্র : চাঁদপুর কন্ঠ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে