কিশোরীকে গণধর্ষনের দায়ে রামগঞ্জে আটক-৩

0
643

অ আ আবীর আকাশ, লক্ষ্মীপুর:
লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে ১৫ বছর বয়সী এক কিশোরীকে ডেকে নিয়ে রাতভর দলবেঁধে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ভিকটিমকে মুমূর্ষু অবস্থায় মঙ্গলবার দুপুর ১২ টায় লক্ষ্মীপর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এর আগে উপজেলার ভাদুর ইউনিয়নের পশ্চিম ভাদুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এঘটনায় অভিযান চালিয়ে ইমন, রাসেল ও শরীফ নামের তিন জনকে আটক করেছে পুলিশ। তবে পুলিশ প্রধান অভিযুক্ত শাওনকে ধরতে পারেনি। আটককৃতরা সবাই একই ইউনিয়নের পশ্চিম ভাদুর গ্রামের বাসিন্দা বলে জানা যায়। ঘটনার শিকার কিশোরী উপজেলার ভোলাকোট ইউনিয়নের নোয়াপাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, স্থানীয় নোয়াপাড়া গ্রামের ওই কিশোরীর বাবা-মায়ের কয়েক বছর আগে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। পরে তারা পৃথক বিয়ে করে অন্যত্র চলে যান। বাড়িতে কিশোরী একাই বসবাস করত। এ সুযোগে কিছুদিন পূর্বে পার্শবর্তী ভাদুর ইউনিয়নের পশ্চিম ভাদুর গ্রামের মো. ইব্রাহিমের ছেলে শাওন ওই কিশোরীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে।

সোমবার রাতে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে কিশোরীকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে শাওন পশ্চিম ভাদুর গ্রামে তার বন্ধু ইমনের বাড়িতে নিয়ে যায়। পরে রাত ওই বাড়িতেই আরো তিন বন্ধু এসে মোট ৪ জন মিলে রাতভর কিশোরীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এতে গুরুত্বর আহত হয়ে পড়ে কিশোরী। সকালে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে মুমূর্ষ অবস্থায় ভিকটিম কিশোরীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করান।

লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মো. আনোয়ার হোসেন জানান, গ্যাং র‌্যাপের শিকার এক কিশোরীকে রামগঞ্জ থানা পুলিশ নিয়ে আসার পর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এ ব্যাপারে রামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন জানান, কিশোরীকে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। প্রধান অভিযুক্ত শাওনকে আটকের জন্য অভিযান অব্যহত রয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান ওসি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে