স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো’র দ্বিতীয় বর্ষপূর্তিতে আমেরিকায় স্বপ্নজাল

    0
    539

    ২০১৬ সালের ৩ মে বাংলাদেশি সিনেমা বিশ্বময় ছড়িয়ে দেয়ার প্রত্যয় নিয়ে যাত্রা করে বাংলাদেশি সিনেমার বিশ্ব পরিবেশক ‘স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো’। আর দ্বিতীয় বর্ষপূর্তিতে ৪ মে শুক্রবার আমেরিকার বিশ্বখ্যাত ‘রিগাল’ চেইনে প্রথম পর্যায়ে তিনটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো এর পরিবেশনায়  ১১ নম্বর ছবি ‘স্বপ্নজাল’।

    স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো এর পরিবেশনায় ‘স্বপ্নজাল’ আমেরিকায় মুক্তি পাবে রিগাল ইউ এ কাফম্যান এস্টোরিয়া (নিউইয়র্ক), রিগাল বলস্টন কমন্স (ভার্জিনিয়া) ও রিগাল রয়াল পাম বিচ (ফ্লোরিডা) এই ৩টি প্রেক্ষাগৃহে।

    স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো এর প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ অলিউল্লাহ সজীব জানিয়েছেন, দ্বিতীয় পর্যায়ে আমেরিকায় আরো বেশ কয়েকটি প্রেক্ষাগৃহে ও মধ্যপ্রাচ্যের আরব আমিরাত ও ওমানে মুক্তি পাবে ‘স্বপ্নজাল’।

    এর আগে গত ২৭ এপ্রিল কানাডার বিশ্বখ্যাত চেইন সিনেপ্লেক্স এন্টারটেইনমেন্ট এর পাঁচটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় ‘স্বপ্নজাল’। স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো এর পরিবেশনায় ‘স্বপ্নজাল’ সিনেপ্লেক্স এন্টারটেইনমেন্ট’ চেইনে দ্বিতীয় সপ্তাহে প্রদর্শন অব্যহত থাকছে এগলিন্টন টাউন সেন্টার (টরন্টো), সিনেমা সিটি মুভিজ ১২ (এডমন্টন) এই দুটি প্রেক্ষাগৃহে।

    গিয়াসউদ্দিন সেলিম পরিচালিত স্বপ্নজাল সিনেমার প্রধান চরিত্রে আছেন পরীমনি,ইয়াশ রোহান,ফজলুর রহমান বাবু,মিশা সওদাগর,ইরেশ যাকের প্রমুখ।

    পরিচালক গিয়াসউদ্দিন সেলিম বলেন, যারা দেশের বাইরে থাকেন যতবার তাঁরা স্বপ্নজাল দেখবেন, বাংলাদেশকে খুঁজে পাবেন। স্বপ্নজাল একটুকরো বাংলাদেশ।

    বিশ্ব পরিবেশক স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো এর দ্বিতীয় বর্ষপূর্তিতে চলচ্চিত্র নির্মাতা,প্রযোজক,শিল্পী-কুশলী,গণমাধ্যমসহ সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো এর প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ অলিউল্লাহ সজীব এবং স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো বাংলাদেশ এর প্রধান নির্বাহী সৈকত সালাহউদ্দিন।

    বিশ্ব পরিবেশক স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো এর পরিবেশনায় ২০১৬ সালে কানাডায় শুরু হয়ে ২০১৭ বছরে বাংলাদশের সিনেমার বাজার বিস্তৃৃত হয় আমেরিকা ও মধ্যপ্রাচ্যে। মূল কার্যালয় কানাডা। স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো এর হাত ধরেই রিগাল, সিনেমার্ক, সিনেপ্লেক্স এন্টারটেইনমেন্ট, ভক্স এমনসব বিশ্বখ্যাত চেইনে মুক্তি পায় আমাদের সিনেমা। বিশ্ববাজারে মুক্তি পেয়েছে অস্তিত্ব, মুসাফির, শিকারী, আয়নাবাজি, প্রেমী ও প্রেমী, পরবাসিনী, নবাব, ঢাকা অ্যাটাক, হালদা, গহীন বালুচর ও স্বপ্নজাল।

    স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো এর পরিবেশনায় ২০১৮ সালে বাংলাদেশের সিনেমার বাজার বিস্তৃৃত হবে ইংল্যান্ড ও অষ্ট্রেলিয়ায়। সব মিলিয়ে বাংলাদেশী একটি সিনেমার জন্য বিশ্ববাজারে উন্মুক্ত থাকবে দুই মিলিয়ন ডলারের উপর বাজার।

    আরো পড়ুন  অন্যের চোখে হয়ে উঠুন সম্মানের পাত্র

    একটি উত্তর ত্যাগ

    আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
    এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে