মাদক সেবনে বড় ভাইয়ের বাধা, ছোট ভাইকে গলা টিপে হত্যা

0
444

বরিশালে মাদক সেবনে বড় ভাই বাঁধা দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে বাধাদানকারীর ছোট ভাইকে গলা টিপে হত্যা করেছে মাদকসেবী মিলন ফকির (১৭)।

বুধবার দুপুরে বরিশাল আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এসব কথা জানায় মাদকসেবী মিলন ফকির। আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়ার পর তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহতের নাম ফাহিম বিশ্বাস (১০)। সে উজিরপুর উপজেলার উত্তর সাতলা এলাকার মোশারফ বিশ্বাসের ছেলে ও উত্তর সাতলা সাইয়েদিয়া কওমী মাদরাসার প্রথম শ্রেণির ছাত্র ছিল। হত্যার পর ফাহিম বিশ্বাসের কাছে থাকা এনড্রয়েড ফোন সেট নিয়ে পালিয়ে যায় মিলন ফকির।

এর আগে গত মঙ্গলবার রাতে আগৈলঝাড়া উপজেলার বাগদা এলাকার নিজ বাড়ি থেকে মিলন ফকিরকে আটক করে পুলিশ। মিলন ফকির ওই এলাকার আলম ফকিরের ছেলে।

উজিরপুর থানার ওসি শিশির কুমার পাল জানান, মিলন ফকিরের নানা বাড়ি উজিরপুর উপজেলার সাতলা বাজারে। হত্যাকান্ডের কয়েকদিন আগে ওই এলাকায় বেড়াতে যায় মিলন ফকির। ওই সময় মিলন ফকির ফাহিম বিশ্বাসের বাড়ির পাশে নেশা করতে যেত। ফাহিমের বড় ভাই একদিন মিলন ফকিরকে নেশা করতে দেখে বাঁধা দেয় এবং গালমন্দ করে সেখান থেকে তাড়িয়ে দেয়।

এর জের ধরে গত ২৭ এপ্রিল সাতলা বাজারের একটি ভবনের ছাদে কথা বলার জন্য ফাহিমকে ডেকে নিয়ে যায় মিলন। পরে সেখানে তাকে গলা টিপে হত্যা করা হয়। হত্যা নিশ্চিত হওয়ার পর ফাইমের মৃতদেহ কার্নিশে রেখে ফাহিমের কাছে থাকা এনড্রয়েট ফোন সেট নিয়ে নানা বাড়ি থেকে পালিয়ে নিজ বাড়ি আত্মগোপন করে মিলন।

ওসি শিশির আরও জানান, ২৮ এপ্রিল মৃতদেহ উদ্ধারের পর হত্যাকান্ড তদন্তে নামে পুলিশ। স্থানীয়দের সাথে কথা বলে ওই ঘটনায় মিলনের সম্পৃক্ততার প্রমান পাওয়া যায়। এরপর মিলনের মুঠোফোন ট্র্যাকিং করে গত মঙ্গলবার রাতে আগৈলঝাড়ার বাগদা এলাকার নিজ বাড়ি থেকে তাকে মিলন ফকিরকে আটক করে পুলিশ। গতকাল দুপুরে তাকে আদালতে সোপর্দ করা হলে তিনি ফাইম হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেয়। পরে তাকে কারাগারে প্রেরন করেন আদালত।

Leave a Reply