২৩ দিন পর গাইবান্ধাসহ উত্তরাঞ্চলের ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক।

0
621

রাকিবুল ইসলাম: অবশেষে ২৩ দিন বন্ধ থাকার পর গাইবান্ধাসহ উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে ঢাকার সরাসরি ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৮ আগষ্ট)ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা লালমনিরহাটগামী আন্তঃনগর লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনটি সকাল ৯টা ৫০মিনিটে গাইবান্ধা স্টেশনে পৌঁছায়। এরপর ৫ মিনিট যাত্রা বিরতি দিয়ে এই রুটে লালমনিরহাটের উদ্দেশে গাইবান্ধা রেল স্টেশন ছেড়ে যায়।

গাইবান্ধা স্টেশন মাস্টার আবুল কাশেম জানান, এই রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ হবার পর থেকে লালমনিরহাট থেকে গাইবান্ধা এবং সান্তাহার থেকে বোনারপাড়ার মধ্যে লোকাল ও মেইল ট্রেনগুলো চলাচল করতো। রংপুর ও লালমনিরহাট থেকে আন্তঃনগর ট্রেন ঢাকায় চলাচল করতো পার্বতীপুর ও সান্তাহার ভায়া হয়ে। ৮ আগস্ট বৃহস্পতিবার থেকে তা স্বাভাবিক হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৬ জুলাই গাইবান্ধার ত্রিমোহিনী-বাদিয়াখালী-বোনারপাড়া জংশন পর্যন্ত এক হাজার ফুট রেললাইনের নিচের মাটি ও পাথর বন্যার পানিতে ভেসে যায়। এ ছাড়া একাধিক স্থানে বড় গর্তের সৃষ্টি হয়। ফলে ওই দিন থেকে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।
পরবর্তীতে এই রুটে চলাচলকারী করতোয়া এক্সপ্রেস ট্রেনটি সান্তাহার থেকে গাইবান্ধার বোনারপাড়া পর্যন্ত চলাচল করে। এছাড়া দোলনচাঁপা এক্সপ্রেস ট্রেনটি দিনাজপুর থেকে গাইবান্ধা, সেভেনআপ ও এইট ডাউন মেইল ট্রেনটি পঞ্চগড় থেকে গাইবান্ধা পর্যন্ত সাময়িকভাবে চলাচল করে। রংপুর ও লালমনিরহাট এক্সপ্রেস ট্রেন দুটি কাউনিয়া-পার্বতীপুর-সান্তাহার রুট ব্যবহার করে ঢাকায় যাওয়া-আসা করতো।

আনুষ্ঠানিক এই যাত্রাকালে রেলের পশ্চিম অঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী মো: আফজাল হোসেনসহ রেলের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

২৩ দিন পর গাইবান্ধাসহ উত্তরাঞ্চলের ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক।

রাকিবুল ইসলাম, গাইবান্ধা প্রতিনিধি: অবশেষে ২৩ দিন বন্ধ থাকার পর গাইবান্ধাসহ উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে ঢাকার সরাসরি ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (৮ আগষ্ট)ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা লালমনিরহাটগামী আন্তঃনগর লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনটি সকাল ৯টা ৫০মিনিটে গাইবান্ধা স্টেশনে পৌঁছায়। এরপর ৫ মিনিট যাত্রা বিরতি দিয়ে এই রুটে লালমনিরহাটের উদ্দেশে গাইবান্ধা রেল স্টেশন ছেড়ে যায়।

গাইবান্ধা স্টেশন মাস্টার আবুল কাশেম জানান, এই রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ হবার পর থেকে লালমনিরহাট থেকে গাইবান্ধা এবং সান্তাহার থেকে বোনারপাড়ার মধ্যে লোকাল ও মেইল ট্রেনগুলো চলাচল করতো। রংপুর ও লালমনিরহাট থেকে আন্তঃনগর ট্রেন ঢাকায় চলাচল করতো পার্বতীপুর ও সান্তাহার ভায়া হয়ে। ৮ আগস্ট বৃহস্পতিবার থেকে তা স্বাভাবিক হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৬ জুলাই গাইবান্ধার ত্রিমোহিনী-বাদিয়াখালী-বোনারপাড়া জংশন পর্যন্ত এক হাজার ফুট রেললাইনের নিচের মাটি ও পাথর বন্যার পানিতে ভেসে যায়। এ ছাড়া একাধিক স্থানে বড় গর্তের সৃষ্টি হয়। ফলে ওই দিন থেকে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।
পরবর্তীতে এই রুটে চলাচলকারী করতোয়া এক্সপ্রেস ট্রেনটি সান্তাহার থেকে গাইবান্ধার বোনারপাড়া পর্যন্ত চলাচল করে। এছাড়া দোলনচাঁপা এক্সপ্রেস ট্রেনটি দিনাজপুর থেকে গাইবান্ধা, সেভেনআপ ও এইট ডাউন মেইল ট্রেনটি পঞ্চগড় থেকে গাইবান্ধা পর্যন্ত সাময়িকভাবে চলাচল করে। রংপুর ও লালমনিরহাট এক্সপ্রেস ট্রেন দুটি কাউনিয়া-পার্বতীপুর-সান্তাহার রুট ব্যবহার করে ঢাকায় যাওয়া-আসা করতো।

আনুষ্ঠানিক এই যাত্রাকালে রেলের পশ্চিম অঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী মো: আফজাল হোসেনসহ রেলের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

২৩ দিন পর গাইবান্ধাসহ উত্তরাঞ্চলের ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক।

রাকিবুল ইসলাম, গাইবান্ধা প্রতিনিধি: অবশেষে ২৩ দিন বন্ধ থাকার পর গাইবান্ধাসহ উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে ঢাকার সরাসরি ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (৮ আগষ্ট)ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা লালমনিরহাটগামী আন্তঃনগর লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনটি সকাল ৯টা ৫০মিনিটে গাইবান্ধা স্টেশনে পৌঁছায়। এরপর ৫ মিনিট যাত্রা বিরতি দিয়ে এই রুটে লালমনিরহাটের উদ্দেশে গাইবান্ধা রেল স্টেশন ছেড়ে যায়।

গাইবান্ধা স্টেশন মাস্টার আবুল কাশেম জানান, এই রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ হবার পর থেকে লালমনিরহাট থেকে গাইবান্ধা এবং সান্তাহার থেকে বোনারপাড়ার মধ্যে লোকাল ও মেইল ট্রেনগুলো চলাচল করতো। রংপুর ও লালমনিরহাট থেকে আন্তঃনগর ট্রেন ঢাকায় চলাচল করতো পার্বতীপুর ও সান্তাহার ভায়া হয়ে। ৮ আগস্ট বৃহস্পতিবার থেকে তা স্বাভাবিক হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৬ জুলাই গাইবান্ধার ত্রিমোহিনী-বাদিয়াখালী-বোনারপাড়া জংশন পর্যন্ত এক হাজার ফুট রেললাইনের নিচের মাটি ও পাথর বন্যার পানিতে ভেসে যায়। এ ছাড়া একাধিক স্থানে বড় গর্তের সৃষ্টি হয়। ফলে ওই দিন থেকে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।
পরবর্তীতে এই রুটে চলাচলকারী করতোয়া এক্সপ্রেস ট্রেনটি সান্তাহার থেকে গাইবান্ধার বোনারপাড়া পর্যন্ত চলাচল করে। এছাড়া দোলনচাঁপা এক্সপ্রেস ট্রেনটি দিনাজপুর থেকে গাইবান্ধা, সেভেনআপ ও এইট ডাউন মেইল ট্রেনটি পঞ্চগড় থেকে গাইবান্ধা পর্যন্ত সাময়িকভাবে চলাচল করে। রংপুর ও লালমনিরহাট এক্সপ্রেস ট্রেন দুটি কাউনিয়া-পার্বতীপুর-সান্তাহার রুট ব্যবহার করে ঢাকায় যাওয়া-আসা করতো।

আনুষ্ঠানিক এই যাত্রাকালে রেলের পশ্চিম অঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী মো: আফজাল হোসেনসহ রেলের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে