হাসপাতালে শঙ্কামুক্ত ফিরোজ, বাড়ি ফেরার অপেক্ষা।

0
708

শাহিন আলম : রাজশাহীতে চলন্ত বাসে হাত বিচ্ছিন্ন হওয়া কলেজছাত্র ফিরোজ সরদার শঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। তবে বিচ্ছিন্ন হওয়া হাতটি আর জোড়া লাগানো সম্ভব নয়। আগামী ২ থেকে ৩ দিনের মধ্যে বাড়ি

ফিরবেন কলেজছাত্র ফিরোজ। রাজশাহী মেডিকেল
কলেজ হাসপাতালের অর্থপেডিক সার্জারি ইউনিটের প্রধান
অধ্যাপক ডা. আলমগীর হোসেন এ তথ্য জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, ফিরোজ সরদারকে আমরা হাসপাতালে পাওয়ার
সঙ্গে সঙ্গেই অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যায়। এরপর
অপারেশন সম্পন্ন হয়। এরপর নিবিড় পর্যবেক্ষণে ছিলেন।
এখন সুস্থ আছেন সে চলাফেরা সবই করতে পাছেন।
হাতের ক্ষত স্থানও অনেকটা ভালো অবস্থানে আছে।
আগামী দুই থেকে তিন দিন পরেই তাকে হাসপাতাল থেকে
ছাড় দেয়া হবে।
রামেকের ৩১ নং ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায়, ফিরোজ
স্বাভাবিক কথাবার্তা বলছে। আপাতত কোনো শঙ্কা নেই।
পুরোপুরি সুস্থ হতে আরও কয়েকদিন লাগবে। তাই বাড়ি
ফেরার অপেক্ষায় আছেন ফিরোজ সরদার।
উল্লেখ্য, শুক্রবার সন্ধ্যায় কাটাখালি পৌরসভার সামনে রাজশাহী-
ঢাকা মহাসড়কে চলন্ত বাসে রাজশাহী কলেজের সমাজকর্ম
বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী ফিরোজ সরদারের ডান হাত
শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। কনুই থেকে তার হাত
রাস্তায় কেটে পড়ে যায়। তার বাড়ি বগুড়ার নন্দীগ্রাম থানার
নামোইট গ্রামে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে রাজশাহী
মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
বগুড়া থেকে মোহাম্মদ ট্রাভেলস নামে একটি যাত্রীবাহী
বাসে রাজশাহী আসছিলেন ফিরোজ। কাটাখালি পৌরসভার সামনে
বাসের সাথে বিপরীতমুখী একটি ট্রাকের সংঘর্ষ ঘটে।
বাসটিকে ঘঁষা দিয়ে ট্রাকটি চলে যায়। এতে বাসের যাত্রী
ফিরোজের ডান হাতের কব্জি কাটা পড়ে।
এদিকে, ট্রাকের চাপায় বাসযাত্রী হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ার
ঘটনায় ‘মোহাম্মদ পরিবহন’ বাসের চালক ফারুক হোসেন
সরকারকে জেলগেটে দুই দিন জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ
দিয়েছেন আদালত। গত বৃহস্পতিবার বিকালে রাজশাহীর
আমলী আদালত এ আদেশ দেন। এর আগে বৃহস্পতিবার
দুপুরে ফারুক হোসেনকে আদালতে হাজির করে
জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) আনিসুর রহমান।
কিন্তু আদালতের বিচারক সেলিম রেজা রিমান্ড আবেদন
নামঞ্জুর করেন। তবে আসামিকে দুই দিন জেলগেটে
জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। পরে বাসচালক
ফারুক হোসেন সরকারকে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে
পাঠানো হয়।
এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই)
আনিসুর রহমান সাথে মুঠোফনে কথা বলে তিনি বলেন,
এখনও পর্যন্ত মোহাম্মদ পরিবহন বাসের চালক ফারুক
হোসেন সরকারকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় নি।
আগামী ১১ তারিখ পর্যন্ত সময় আছে সেই সময়ের
মধ্যেয় তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে