ডা.মির্জা এ.সোবহান ছাত্রদের নিয়ে নানা আন্দোলন গড়ে তুলে স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন: ডা.জাফরুল্লাহ

0
745
ছবি: সংগৃহীত

বুধবার (১৯ জুন) নারায়নগঞ্জ এ্যাম্পায়ার কমিউনিটি সেন্টারে দেশের স্বনামধন্য চিকিৎসক, ষাটের দশকের তুখোড় ছাত্রনেতা, ঢাকা মেডিকেল কলেজ ছাত্রসংসদের সাবেক সংগ্রামী ভিপি, দেশবরেণ্য সংগঠক ও সমাজ সেবক মরহুম ডা.মির্জা এ.সোবহান এর ১১ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি ও আলোচকের বক্তব্যে ডা.জাফরুল্লাহ বলেন, শুধু এক ব্যক্তি দিয়ে দেশ সৃষ্টি হয়না উল্লেখ করে ডা.জাফরুল্লাহ বলেন, কেবল বঙ্গবন্ধুই বাংলাদেশ সৃষ্টি করেন নাই। তার আশেপাশের আরো অনেক লোক ছিলেন। মির্জা আব্দুস সোবহান ঠিক তেমনই এক ব্যক্তিত্ব। তখন কেউ আইয়ুব খানের বিরুদ্ধে কথা বলতে পারতোনা। সেই সময় আব্দুস সোবহান ছাত্রদের নিয়ে নানা আন্দোলন গড়ে তুলে স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন।

আইয়ুব খানের সময় কোন পোষ্টার লাগাতে পারতোনা, তারা ছিঁড়ে ফেলতো। তখন তিনি একটি বুদ্ধি বের করলেন হাইকোর্টের সামনের রাস্তায় বড় করে লিখলেন ‘আইয়ুব খান মুর্দাবাদ’।তখনকার সরকার সেই লেখা উঠাতে পারেনি। ডা.আব্দুস সোবহান অনেক সাহসী ব্যক্তি ছিলেন জানিয়ে ডা.জাফরুল্লাহ বলেন, তিনি সবসময় সুদর্শন ছিলেন। তার বড়গুণ ছিলো সব শ্রেণি পেশার মানুষের সাথে মিশে যেতে পারতেন। নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জের লোকজনের সাথে তিনি মিশে যেতে পারছিলেন। তিনি অসম্ভবভাবে মানুষের সেবা করতেন। মুক্তিযুদ্ধের সময়কার স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় কেউ আহত হলে আমরা একটি ঠিকানা দিয়ে দিতাম সেটি হচ্ছে ডা.মির্জা এ সোবহান। রাত বিরাত আহত মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসাসেবা দেয়া, অর্থ সহায়তা দেয়া তিনি ভালোভাবে করতেন। তাই তাকে স্মরণ করা আমাদের প্রয়োজন ছিলো। তারমতো লোককে স্মরণ না করলে কখনো দেশের ভালো হবেনা। অর্থই সবকিছুনা, এরবাইরেও অনেক কিছু আছে। ডা.মির্জা এ.সোবহান একটি আলোকবর্তিকা।

মানুষকে চিকিৎসা সেবা দেয়ার জন্য ডা.এ.সোবহানের অসম্ভব দরদ ছিলো জানিয়ে দেশের বিশিষ্ট গণমাধ্যম ও রাজনৈতিক এই ব্যক্তিত্ব আরো বলেন, ভালো সেবা পেতে হলে ভালো জেনারেল প্র্যাকটিশনার (জিপি) দরকার। ডা.এ সোবহান রোগীদের জন্য দু কি তিনটে ওষুধ লিখতেন। ভালো ডাক্তাররা বেশি ওষুধ লেখেননা। তিনি স্যাম্পল বিক্রি করে খেতেননা।

ডা.মির্জা এ.সোবহান ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও বিএমএ নারায়ণগঞ্জ জেলার সাবেক সভাপতি ডা.মো. শাহনেওয়াজ চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং সংগঠনের মহাসচিব ও ডা.মির্জা এ সোবহানের ছেলে মির্জা আশিক রানার সঞ্চালনায় রাজশাহী কর আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. মোজহারুল বকুল, সাবেক সভাপতি এড.ফজলে করিম,হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ডা.নুরুল ইসলাম, নারায়ণগঞ্জ বণিক সমিতির নেতা রাশেদ সারোয়ার, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের অতিরিক্ত কর কমিশনার শাহীন আক্তার হোসেন, সুপ্রীম কোর্ট বার এসোসিয়েশনের সাবেক সহসম্পাদক এড.কাজী জয়নাল আবেদীন, ব্যবসায়ী নেতা মঈন মাসুদ, টঙ্গীবাড়ি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মির্জা বাদশাহ শাহীন, দেওয়ান মাসুম ইসলাম, নারায়ণগঞ্জ কেমিষ্ট এন্ড ড্রাগিষ্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি শাজাহান খান বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে ডা.মির্জা এ.সোবহানের নারায়ণগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলার সমর্থক ও অনুসারীরা উপস্থিত ছিলেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে