পুকুরে বিষ প্রয়োগে ৪০০ মণ মাছ নিধন, গ্রেপ্তার ১

1
708

শাহিন আলম দূর্গাপুর: রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলায় পুকুরে
বিষ দিয়ে ৪০০ মণ মাছ নিধনের অভিযোগে থানায় মামলা
হয়েছে। এ মামলায় পুলিশ শাওন রহমান (২২) নামে এক
যুবককে গ্রেপ্তার করেছে। শাওন উপজেলার দেবীপুর
গ্রামের আজিজুর রহমানের ছেলে। সোমবার দুপুরে
দেবীপুর স্কুলবাজার থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
এর আগে রোববার রাতে ভুক্তভোগী মাছ চাষি আবদুল
আওয়াল মোল্লা শাওনসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে দুর্গাপুর থানায়
মামলা করেন। অন্য আসামিরা হলেন, আজিজুর রহমান (৪৫), জালাল
উদ্দিন (৪২), দেলোয়ার হোসেন (৩৫) ও সফির বাবু ওরফে
দিনু (৩৫)। চাঁদা না দেয়ায় তারা পুকুরে বিষ প্রয়োগ করেন
বলে মামলার এজাহারে দাবি করেছেন মাছ চাষি আবদুল আওয়াল
মোল্লা।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি আসামিরা আওয়ালের কাছে
পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। কিন্তু চাঁদা না দেয়ার কারণে তারা
পুকুর পাড়ে আওয়ালের টিনের ঘর ভেঙে দেন। এছাড়া তারা
মাছের খাবার নষ্ট করেন এবং পুকুরপাড়ের কলাগাছের কলা ও
আম গাছ থেকে আম পেড়ে নিয়ে যান। এ নিয়ে আওয়াল
মামলা করেন। আদালতে এ মামলার ধার্য দিন ছিল গত ১৩ জুন।
এদিকে মামলার পর এবার ১০ লাখ টাকার জন্য চাপ দিচ্ছিলেন
আসামিরা। কিন্তু চাঁদা না দেয়ার কারণে গত ১৩ জুন তারা দুর্গাপুরের
ডহর বিলে দেবীপুর গ্রামের বাসিন্দা আওয়ালের ইজারা
নেয়া ২৫ বিঘা জমির পুকুরে বিষ ঢেলে দিয়ে আদালতে যান।
দুর্গাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল মোতালেব
বলেন, পুকুরে বিষ দেয়ার কারণে প্রায় ৪০০ মণ মাছ মরে
গেছে। এতে প্রায় ৬০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে মাছ
চাষি আওয়াল দাবি করেছেন। তার মামলার আসামি শাওনকে
আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অন্য
আসামিদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান
দুর্গাপুর থানা পুলিশের এই কর্মকর্তা।

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে